বলিউড বাদশাহর জন্মদিন আজ

তার তুলনা শুধু তিনি। তিনি বলিউড বাদশাহ শাহরুখ খান। কিং অব রোম্যান্স। আজ তার ৫৫তম জন্মদিন। জিরো থেকে হিরো হয়ে উঠা শক্তিমান এক অভিনেতার নাম শাহরুখ।

জীবনের এই উত্থানের পরতে পরতে আছে সংগ্রাম ও অধ্যবসায়ের গল্প। সেসব বিভিন্ন সময় নিজেই জানিয়েছেন শাহরুখ। সঙ্গত কারণেই বলিউডে প্রেরণা যোগানো নায়কদের মধ্যে অন্যতম হিন্দি সিনেমার রঙিন ‘দেবদাস’।

১৯৬৫ সালের ২ নভেম্বর ভারতের নয়া দিল্লিতে এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন শাহরুখ। তার বাবা মীর তাজ মোহাম্মদ খান। মা লতিফ ফাতিমা।

অভিনেতা হিসেবে শাহরুখের পথচলার শুরু ১৯৮৯ সালে। বলিউডে অভিষেক ঘটে ১৯৯২ সালে ‘দিওয়ানা’ ছবির হাত ধরে। এ ছবিতে তার দুর্দান্ত অভিনয়ের জন্য অর্জন করেন সেরা নবাগত অভিনেতা হিসেবে ফিল্মফেয়ার পুরস্কার। এরপর ‘চমৎকার, ‘দিল আসনা হে’ ও ‘রাজু বান গেয়া জেন্টলম্যান’ এর মতো ছবিতে অভিনয় করে সকলের নজর কাড়েন তিনি। পরে ‘ডর’ ও ‘বাজিগর’ ছবিতে অভিনয়ের জাদু দিয়ে মোহমুগ্ধ করে স্থায়ী আসন গড়েন দর্শকের মনে, পৌঁছে যান সাফল্যের চুড়ায়।

একের পর এক হিট ছবি দিয়ে বলিউডে অবস্থান পোক্ত করেন শাহরুখ। ‘করন অর্জুন’, ‘দিলওয়ালে দুলহানিয়া লে জায়েঙ্গে’, ‘পরদেশ’, ‘দিল তো পাগল হ্যায়’, ‘দিল সে’, ‘মোহাব্বাতে’, ‘কাভি খুশি কাভি গাম’, ‘দেবদাস’, বাদশাহ, ‘ডন’, কাল হো না হো, বীর-জারা, মাই নেম ইজ খান, স্বদেশ, কুছ কুছ হোতা হ্যায়, চাক দে ইন্ডিয়া প্রভৃতি ছবির মধ্য দিয়ে অভিনেতা হিসেবে নিজেকে অন্যরকম উচ্চতায় নিয়ে গেছেন শাহরুখ খান।

প্রায় তিন দশকের ক্যারিয়ারে মোট ১৪ বার ফিল্মফেয়ার পুরস্কার লাভ করেন শাহরুখ। তার মধ্যে আটবার সেরা অভিনেতার। তাকে পদ্মশ্রী পুরস্কারে ভূষিত করেছে ভারত সরকার। এ ছাড়া বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সম্মানসূচক ডক্টরেট ডিগ্রি পেয়েছেন শাহরুখ খান। ব্যক্তি জীবনে তিন সন্তানের জনক শাহরুখ খান।