শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের উদ্দেশে শিক্ষামন্ত্রীর কঠিন হুঁশিয়ারি

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, অ্যাসাইনমেন্টর জন্য আলাদা করে ফি নেয়ার কোনো কারণ নেই। কেউ যদি অ্যাসাইনমেন্টর জন্য আলাদা করে ফি চায় তাহলে সেই প্রতিষ্ঠান অন্যায় করছে।

সেক্ষেত্রে কেউ যদি আমাদের সুনির্দিষ্টভাবে জানায় তাহলে আমরা সেই প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।অ্যাসাইনমেন্টের সঙ্গে স্কুলের বেতন বা অন্যান্য ফি’র কোনো সম্পর্ক নেই জানিয়ে দীপু মনি বলেন, স্কুলের উচিত শিক্ষার্থীদের অ্যাসাইনমেন্ট দেয়া।

তবে অনেক স্কুল ভাবতে পারে এই সুযোগে বেতন তুলে নিতে পারবে। যদি এমনটি কেউ চিন্তা করে তা ঠিক হবে না। কোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান যদি অ্যাসাইনমেন্ট আটকে টিউশন ফি আদায় করতে চায় তাহলে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরে সরাসরি জমা দিতে শিক্ষার্থীদেরকে আহবান জানান।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, অভিভাবকদের উচিৎ বেতন পরিশোধ করা। অন্যথায় প্রতিষ্ঠান শিক্ষক,কর্মচারীদের বেতন দিতে পারবে না। সেক্ষেত্রে স্কুল কলেজ বন্ধ হয়ে যাবে।

স্কুল কলেজ বন্ধ হয়ে গেলে তখন শিক্ষার্থীরা অনেক বড় বিপদে পরবে। এক্ষেত্রে যাদের আর্থিক অবস্থা অনেক খারাপ তারা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে কথা বলে পরে (বেতন) দেবার কথা বা কমিয়ে নেয়ার বা মওকুফ করার কথা আলোচনা করতে পারেন।

আরও পড়ুন=প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের (ডিজি) কাছে মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তারা বিভিন্ন তদবির নিয়ে আসছেন। বদলির জন্য অনেক শিক্ষা কর্মকর্তা অনুমতি ছাড়াই সশরীরে মহাপরিচালক আলমগীর মুহাম্মদ মনসুরুল আলমের সঙ্গে দেখা করছেন।

এমন পরিস্থিতিতে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের সকল মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাকে ব্যক্তিগত প্রয়োজনে অধিদপ্তরে আসতে নিয়ন্ত্রণকারী কর্মকর্তা ও পরিচালক প্রশাসনের আগাম অনুমতি লাগবে।

রোববার প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর এ বিষয়ে একটি অফিস নোটিশ দিয়েছে। এতে স্বাক্ষর করেছেন পরিচালক (প্রশাসন) মো. মিজানুর রহমান।