সকালে দুধ চা খেলে শরীরে যে আটটি ক্ষ’তি ও পরিবর্তন হয়, যা জানলে অবাক হবেন আপনিও!

গানের কথাতে আছে “এক কাপ চা খাস্তা লেরুই সকালটা শুরু” অর্থাৎ আমরা সকাল বেলায় ঘুম থেকে উঠে জল বাদে সর্বপ্রথম যে পানীয়টি গ্রহণ করি সেটি হলো চা ।

সকালে ঘুম ভাঙার থেকে শুরু করে সারা দিনের ক্লান্তি দূর করা পর্যন্ত চা এর অবদান অনস্বীকার্য । সকালবেলা সন্ধ্যেবেলা এমনকি দুপুরবেলা তেও অনেকে চা পান করে থাকেন । চা স্বাস্থ্যের পক্ষে অত্যন্ত স্বাস্থ্যকর পানীয় কিন্তু কখনো কখনো ক্ষেত্রে মাত্রারিক্ত হয়ে গেলে সেটি ডেকে আনে শরীরের ক্ষতি।

ঘুম থেকে ওঠার পর চা না খেয়ে দিনটা কেমন জানি শুরু হয় না। ভালোভাবে যেকোনো কাজের শুরুতেই চা অত্যাবশ্যকীয়। অনেকে আবার চা খাবার প্রতি অ্যাডিকশন হয়ে যায় । অর্থাৎ দিনে মাত্রারিক্ত চা খেয়ে ফেলেন এর পাশাপাশি অফিস টাইমে যারা কাজ করেন দীর্ঘ সময় কাজ করা ফর শরীরের ক্লান্তি আসে সেটি থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য অনেকে চা পান করেন ।

কিন্তু আপনি কি জানেন যদি মাত্রারিক্ত চা পান করা হয় তাহলে আপনার শরীরে আসতে পারে চরম ক্ষতি। তাই আপনি যদি দিনে অধিক চা গ্রস্ত হয়ে থাকেন তাহলে এখন থেকে সাবধান হওয়া দরকার আপনার।

তবে শুধু মাত্র চা নয় , দুধ চা খেলে আপনার ক্ষ-তি হতে পারে । এক গবেষণায় বলা হচ্ছে যে একজন মানুষ দিনে তিন থেকে চার কাপ চা খেতে পারে । সেটি তার স্বাস্থ্যের কোন ক্ষ-তি করে না । কিন্তু এর বেশি অর্থাৎ ৭-৮ কাপ যদি কেউ দুধ চা খায় তাহলে তার শরীরে হতে পারে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি ।

সারাদিনে একজন সুস্থ ব্যক্তির ২-৪ কাপের বেশি চা খাওয়া উচিত না। চা পানীয় হিসেবে খুবই স্বাস্থ্যকর। কেননা চাতে ক্যাফেইনের পাশাপাশি ক্যাটেচিন থাকে৷কিন্তু চায়ের সাথে যদি দুধ মিশানো হয় তবে দুধের কেজিন প্রোটিন আর ক্যাটেচিন রি-অ্যাকশন করে এন্টিঅক্সিডেন্টের গুণ নষ্ট করে দেয়, পাশাপাশি চা-কে এসিডিক করে ফেলে। যার কারণে ইনফ্লামেশন হয়। আর চিনি যোগ করলে সেই ক্ষতি আরও বেড়ে যায়। আসুন দেখে নেওয়া যাক যে দুধ চা খেলে কি কি ক্ষতি হতে পারে।

১)পুষ্টির ঘাটতি হতে পারে ২)স্ট্রেস এবং দুশ্চিন্তা বাড়ায় ৩)অ্যাডিকশন বাড়াই ৪)পেট ফাঁপা জনিত সমস্যা তৈরি করে ৫) অনিদ্রা ৬) ব্রণ ওঠে ৭)কোষ্ঠকাঠিন্য ৮)রক্তচাপ ওঠানামা করে ।