৫টি প্রাকৃতিক প্রতিকার যা কাশির বন্ধ করতে সাহায্য করবে

সাধারত কাশি স্বাস্থ্যের পক্ষে খারাপ নয়। এটি একটি স্বাভাবিক এবং প্রাকৃতিক ক্রিয়া যা শ্বাসনালী পরিষ্কার করতে সাহায্য করে। এটি সাধারণত অস্থায়ী।

তবে একটানা কাশি হলে বিরক্তিকর হতে পারে। এটি অ্যালার্জেন, ধুলা, ধোঁয়া বা দূষণের কারণে ঘটতে পারে যা শীতের সময় আরও খারাপ আকার ধারণ করতে পারে।

যদি আপনিও এমন সমস্যায় ভুগে থাকেন তবে স্বস্তির জন্য প্রাকৃতিক প্রতিকার ব্যবহার করতে পারেন। কিছু ঘরোয়া প্রতিকার শ্বাসনালী পরিষ্কার করার জন্য বেশ কার্যকরী, এতে শ্বাস প্রশ্বাস সহজ হয়। তবে সমস্যাটি যদি দীর্ঘদিন ধরে থেকে যায় তখন চিকিৎসকের পরামর্শ নেয়া ভালো।

৫টি প্রাকৃতিক প্রতিকার যা কাশির বন্ধ করতে সাহায্য করবে-

মধু

মধু হলো সর্দি এবং কাশির জন্য একটি পরীক্ষিত ঘরোয়া প্রতিকার। এর অ্যান্টিঅক্সিড্যান্টস, অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল এবং অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি বৈশিষ্ট্য গলা ব্যথা কমাতে সাহায্য করে।

সাম্প্রতিক এক সমীক্ষায় জানা গেছে যে, সর্দি এবং কাশি নিরাময়ের জন্য ওষুধের চেয়ে মধু ভালো। ভেষজ চা বা হালকা গরম পানি এবং লেবুর রসে ২ চা চামচ মধু মিশিয়ে প্রতিদিন দুইবার পান করলে উপকার পাবেন।

লবণ-পানির গার্গল

লবণ-পানির গার্গলে গলার খুশখুশে ভাব কমে এবং এটি শ্লেষ্মা পরিষ্কার করতে পারে। ১ কাপ হালকা গরম পানিতে ১/৪ চামচ লবণ মিশিয়ে দিনে একাধিকবার এটি দিয়ে গার্গেল করুন। এই প্রতিকারটি শিশুর জন্য নয় কারণ তারা ঠিকমতো গার্গল করতে সক্ষম না হতে পারে এবং লবণের পানি গিলে ফেলতে পারে।

আদা

আদা কাশির সমস্যা কমিয়ে দিতে পারে। আদা চা বা মধু এবং কালো মরিচের সাথে আদার রস খাওয়া কাশি নিরাময়ের অন্যতম কার্যকরী প্রতিকারঅ তবে বেশি আদা চা পান করবেন না কারণ এটি পাকস্থলীর সমস্যা ডেকে আনতে পারে।

তুলসি পাতা

তুলসি পাতায় মেন্থল নামক একটি যৌগ থাকে যা কাশি দূর করার কাজে লাগে। এটি গলা ব্যথা থেকে মুক্তি দিতে পারে। এছাড়াও, তুলসি পাতা শ্লেষ্মা কমাতে সাহায্য করতে পারে। সমস্যা কমানোর জন্য দিনে ২-৩ বার গোল মরিচের চা পান করা সবচেয়ে কার্যকরী উপায়। অ্যারোমাথেরাপি হিসাবে তুলসি পাতার তেলও ব্যবহার করতে পারেন।

ইউক্যালিপটাস তেল

ইউক্যালিপটাসের তেল নিশ্বাস পরিষ্কার রাখতে সাহায্য করে। নারিকেল বা অলিভ অয়েলের সঙ্গে কয়েক ফোঁটা ইউক্যালিপটাস তেল মিশিয়ে বুকে এবং গলায় ঘষুন। ইউক্যালিপটাস পানিতে মিশিয়ে ভাপ নেয়ার চেষ্টাও করতে পারেন।

এক বাটি গরম পানিতে কয়েক ফোঁটা ইউক্যালিপটাস তেল যোগ করুন এবং ভাপ নিন। নিঃশ্বাস পরিষ্কার হবে। দূর হবে কাশিও।