মাটির নিচে মিলল ৮০০ বছরের পুরোনো ‘সোনার সুড়’ঙ্গ

মাটির নিচে ৮০০ বছরের পু’রোনো সোনার সু’ড়ঙ্গের খোঁ’জ পেলেন বি’জ্ঞানীরা। খোঁ’জ মিলল যো’দ্ধাদের গো’পন সদর দ’ফতরেরও।

এখন শুধু খোঁ’ড়াখুঁড়ি করে সেই স’ম্পত্তি তুলে আনার অপেক্ষা। উন্নত প্রযু’ক্তির লেজার প্রযু’ক্তি ব্যবহার করে এই সু’ড়ঙ্গের খোঁ’জ পাওয়া গেছে বলে জা’নিয়েছেন বিজ্ঞানীরা।ন্যা’শনাল জি’য়োগ্রাফিক চ্যানেলের বিজ্ঞানী লিন এবং তার দল স’ম্প্রতি ইসরায়েলে এই সোনার সুরঙ্গের খোঁ’জ পেয়েছেন। চ্যানেলটিতে তা সম্প্র’চার করাও হয়েছে। লিন জা’নিয়েছেন, একাদশ শতকে ধ’র্মযু’দ্ধের সময় ইসরায়েলের শহর একরির নিচে খ্রিষ্টান যোদ্ধারা সুড়ঙ্গ তৈরি করেছিলেন।

ধ’র্মযু’দ্ধ ছিল ইসরায়েলকে মুসলিম আধিপত্য থেকে মু’ক্ত করার, সেখানে খ্রিস্টধ’র্মের সূচনা করার। ধ’র্মযু’দ্ধের সময় ইসরায়েলের ওই শ’হরই ছিল যো’দ্ধাদের সদর দ’ফতর।সদর দ’ফতর যাতে সহজে খুঁ’জে না পাওয়া যায়, তার জন্য একরি শহরের মাটির অনেকটা নিচে ওই সুড়’ঙ্গ তৈরি করা হয়েছিল। গো’পন সুড়’ঙ্গ দিয়ে সদর দ’ফতরে পৌঁ’ছাতেন যো’দ্ধারা।

এই সুড়’ঙ্গ দিয়ে যু’দ্ধের প্রয়োজনীয় সামগ্রী এবং স’ঙ্গে প্রচুর সোনা নিয়ে যেতেন যোদ্ধারা। তবে অনেক ই’তিহাসবিদ মনে করেন, এই গো’পন সু’ড়ঙ্গ সোনার মতো মূ’ল্যবান স’ম্পদ নিয়ে যাওয়ার পাশাপাশি সে’নাদের লু’কিয়ে থাকা এবং বি’পদে পড়লে অন্য’ত্র পা’লানোর রাস্তা হিসেবেও ব্যবহার করা হতো।এতদিন সেই সুড়’ঙ্গ এবং সদর দ’ফতরের কথা জা’না থাকলেও, তার প্রকৃত অব’স্থান জা’না ছিল না। এই প্রথম ৮০০ বছরের পুরোনো সেই সুড়’ঙ্গের খোঁ’জ পে বি’জ্ঞানী লিন। তবে এই

সুড়’ঙ্গ মাটির ঠিক কতটা নিচে রয়েছে এবং তার বিস্তৃতি কতটা জায়গা জু’ড়ে রয়েছে তা জা’নার চে’ষ্টা এখনও চা’লিয়ে যা’চ্ছেন বি’জ্ঞানীরা।ইসরায়েলের একরি শহরে মাটির ওপরে থাকা খ্রি’ষ্টান ধ’র্মযোদ্ধাদের সদর দ’ফতরের ধ্বং’সস্তূ’প এখনও রয়েছে। বি’জ্ঞানীদের অনুমান, আরও ভালো করে খোঁ’ড়াখুঁড়ি করলে ধ’র্মযোদ্ধাদের লু’কিয়ে রাখা অনেক সোনা উ’দ্ধার করা যাবে মাটির নিচের ওই সদর দ’ফতর এবং সুড়’ঙ্গ থেকে।