বাংলা ভাষায় শিশু-কিশোরদের নিরাপদ বিনোদনের জন্য আসছে ‘টিংটংটিউব’

সম্পূর্ণ বাংলা ভাষায় শিশু-কিশোরদের জন্য নিরাপদ কন্টেন্ট নিয়ে যাত্রা শুরু করছে টিংটংটিউব। শিশু-কিশোরদের মানবিক ও মানসিক বিকাশ,

সুশিক্ষা, সুস্থ ও নিরাপদ বিনোদন নিশ্চিত করতে ইউটিউবের আদলে গড়ে তোলা হয়েছে এই ভিডিও শেয়ারিং ওয়েবসাইটটি । আগামী ১৬ ই ডিসেম্বর আনুষ্ঠানিকভাবে লাইভ হবে এই ওয়েবসাইটটি। পাশাপাশি ‘টিংটংটিউব’ টিম অ্যানড্রয়েড ব্যবহারকারীদের জন্য আনতে যাচ্ছে টিংটংটিউবের অ্যাপ। আগামী ১ জানুয়ারি গুগল প্লে স্টোরে যুক্ত হবে অ্যাপটি।

বর্তমান নগরজীবনে খেলার মাঠের সংখ্যা কমে যাওয়ায় এবং তথ্য-প্রযুক্তির আগ্রগতির কারণে শিশুদের কম্পিউটার, মোবাইল ফোন তথা ইন্টারনেটে বেশি সময় কাটাতে দেখা যায় শিশু-কিশোরদের। তাদের কাছে সময় কাটানোর জন্য ভীষণ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে ইউটিউব। কিন্তু এখানেও বিড়ম্বনার অন্ত নেই। ইউটিউবে অনেক সময় শিশুতোষ কন্টেন্ট দেখার সময় চলে আসে এমন অনেক কন্টেন্ট যা শিশুদের জন্য উপযোগী নয়। পাশাপাশি ইউটিউবে প্রায়ই বিদেশি ভাষার নানা ধরনের ভিডিও চলে আসে শিশুদের সামনে, যে ভাষা তারা বোঝে না। টিংটংটিউব-এ সকল সমস্যা থাকবে না।

যে কেউ চাইলেই শিশু-কিশোরদের নিয়ে বা শিশু-কিশোরদের জন্য ভিডিও কন্টেন্ট পাঠাতে পারবেন টিংটংটিউবে। পরিষোধিত নিরাপদ কন্টেন্ট প্রকাশ করার জন্য টিংটংটিউবে থাকবে রিভিউয়ের সুযোগ। টিংটংটিউবের টিম কর্তৃক পর্যবেক্ষণ শেষে এই কনটেন্ট ঠাঁই পাবে টিংটংটিউবের সাইটে।

শিশুদের সুশিক্ষা ও সচেতনতামূলক কন্টেন্টের পাশাপাশি দেশের ইতিহাস, সংস্কৃতি, অর্জন, সাধারণজ্ঞান জানার সুযোগ থাকবে টিংটংটিউবে। এছাড়া, বিনোদনের জন্য গেমস, গান , খেলাধুলা, কার্টুন, ভ্রমণ ও প্রযুক্তিসহ নানা সব ধরনের ভিডিও থাকবে এই সাইটটিতে।

টিংটংটিউবের প্রতিষ্ঠাতা আজমীর হাসান কনক বলেন, সময়ের সাথে সাথে আমরা আমাদের ছোটবেলার পরিবেশ হারিয়ে ফেলেছি, আমরা চাইলেই এখন শিশু-কিশোরদের আগের পরিবেশটা এনে দিতে পারবো না। এখনকার শিশু-কিশোরেরা এই সময়ের প্রতিনিধি। তাদের সুশিক্ষা ও নিরাপদ বিনোদন নিশ্চিত করতে আমরা এখন বাবা-মায়ের সাথে আছি। আশা করছি সবার সমর্থন ও সহযোগিতায় আমরা ভাল কিছু করতে সক্ষম হবো।

আগামী ১৬ ডিসেম্বর থেকে যেকোনো ব্রাউজারে গিয়ে www.tingtongtube.com লিখলেই পাওয়া যাবে এই সাইটিকে। আর গুগল অ্যাপের জন্য অপেক্ষা করতে হবে ১ জানুয়ারি ২০২১ পর্যন্ত।