জানুয়ারিতে কঠিন পরীক্ষার মুখে পড়তে যাচ্ছে জুভেন্টাস

টানা দশম সিরি-এ শিরোপা জয়ের লক্ষ্যে নতুন বছরের প্রথম মাসেই কঠিন পরীক্ষার মুখে পড়তে যাচ্ছে আন্দ্রে পিরলোর জুভেন্টাস।

ইতালিতে পুরো জানুয়ারি মাস জুড়ে ব্যস্ত ফুটবল সূচীতে জুভেন্টাস নিজেদের কতটুকু মানিয়ে নিতে পারে সেটাই এখন মূল বিষয়। মৌসুমের শুরুটা মোটেই ভাল হয়নি, দু:শ্চিন্তাটা মূলত সেখানেই। বর্তমানে লিগ চ্যাম্পিয়ন তুরিনের জায়ান্টরা টেবিলের ষষ্ঠ স্থানে অবস্থান করছে।

বড়দিন ও নতুন বছরের ছুটি কাটিয়ে এই সপ্তাহেই আবারো সিরি-এ মাঠে গড়াচ্ছে। শুধুমাত্র জুভেন্টাস নয়, জানুয়ারিতে অবশ্য প্রতিটি দলকেই বেশ ব্যস্ত সূচী পার করতে হবে।

রোববার উদিনেসকে আতিথ্য দিবে জুভেন্টাস। এরপরপরই এ মাসেই তাদের খেলতে হবে আরো পাঁচটি সিরি-এ ম্যাচ, সাথে রয়েছে ইতালিয়ান কাপ ও সুপার কাপ।

গত দুই দশকে জুভেন্টাস ছাড়া সিরি-এ জেতার সৌভাগ্য হয়েছে শুধুমাত্র দুই মিলান ক্লাব এসি ও ইন্টার মিলানের। বর্তমানে এদুটি দলই টেবিলের শীর্ষে অবস্থান করছে। এন্টোনিও কন্টের রোমাকে এক পয়েন্টে পিছনে ফেলে শীর্ষে রয়েছে এসি মিলান। দ্বিতীয় স্থান থেকে ৬ পয়েন্ট পিছিয়ে থেকে তৃতীয় স্থানে রয়েছে রোমা। এসি মিলানের থেকে ১০ পয়েন্ট পিছিয়ে ষষ্ঠ স্থানে রয়েছে জুভেন্টাস। যদিও তারা এক ম্যাচ কম খেলেছে।

উদিনেসের পর জুভেন্টাস আগামী বুধবার সান সিরোতে এসি মিলানের মোকবেলা করবে। এরপর চতুর্থ স্থানে থাকা সাসোলোকে তুরিনে আতিথ্য দেবার পর ইন্টার সফরে যাবে।

চ্যাম্পিয়ন্স লিগে গ্রুপের শীর্ষে থেকে নক আউট পর্ব নিশ্চিত করার পরও ঘরোয়া মৌসুমে ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে পারছে না পিরলো শ্যিষরা। বেশীরভাগ ম্যাচেই তাদেরকে ক্রিস্টিয়ানো রোনাল্ডোর গোলের ওপর ভরসা করতে হচ্ছে। পর্তুগীজ এই সুপারস্টার ইতোমধ্যেই জুভেন্টানের ২৫টি লিগ গোলের মধ্যে ১২টি দিয়েছেন।

এবারের লিগে এ পর্যন্ত জুভেন্টাস ছয়টিতে ড্র ও ছয়টিতে জয়ী হয়েছে। বড়দিনের আগে ফিওরেন্টিনার কাছে ঘরের মাঠে ৩-০ গোলের পরাজয় দিয়ে মৌসুমে প্রথম হারের স্বাদ গ্রহণ করেছে।

পিরলো বলেছেন, ‘মাঝে মাঝে আমরা শতভাগ দিতে পারিনা। এখন আবারো নতুন করে শুরু করতে যাচ্ছি। ভুলগুলো শুধরে নিয়ে যতটা এগিয়ে যাওয়া যায় সেটাই মূল লক্ষ্য।’

এক্ষেত্রে ইতালি ও জুভেন্টাসের সাবেক এই খেলোয়াড় ২০১৫-১৬ মৌসুম থেকে শিক্ষা নিতেই পারেন। ১০ ম্যাচ পরে টেবিলের ১২তম স্থানে থাকার পরও মৌসুম শেষে শিরোপটা ঠিকই ঘরে তুলেছিল জুভরা।

মিলান কোচ স্টিফানো পিউলি বলেছেন, ‘এখনই শিরোপা নিশ্চিতের বিষয়টি একটু আগে ভাগে বলা হয়ে যাবে। জুভেন্টাস সব সময়ই ফেবারিট। গত নয় বছরে তারা সেটার প্রমান দিয়েছে। কিন্তু ইন্টারও এবার এগিয়ে এসেছে। ট্রান্সফার মার্কেটে তারা প্রচুর অর্থ ব্যয় করেছে। তার উপর ইন্টারের সামনে ইউরোপীয়ান কোন বাড়তি প্রতিশ্রুতি নেই।’

দুই মিলানই এবারের লিগে উন্নীত দুই দলের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে নতুন বছর শুরু করতে যাচ্ছে। এসি মিলান বেনভেনটোর ও ইন্টার মিলান ক্রোটনের মোকাবেলা করবে। এদিকে ১১তম স্থানে থাকা ক্লডিও রানেইরির সাম্পদোরিয়াকে আতিথ্য দিবে রোমা। চতুর্থ স্থানে থাকা সাসোলো আটালান্টা সফরে যাবে। পঞ্চম স্থানে থাকা নাপোল কালিয়ারির বিপক্ষে তিন ম্যাচ পর জয়ের লক্ষ্যে মাঠে নামবে। যদিও দলে থাকছেন না ইনজুরি আক্রান্ত ফরোয়ার্ড ড্রিয়েস মার্টিনস, ডিফেন্ডার কালিডু কোলিবেলি ও কোভিড-১৯ পজিটিভ হওয়া নাইজেরিয়ান স্ট্রাইকার ভিক্টর ওসিমে।