অধিনায়কের হুমকি-অসভ্যতায় দল ছাড়লেন ভারতীয় ক্রিকেটার!

বছরখানেক আগে নারীঘটিত বিষয়ে বড় বিতর্কে জড়িয়ে নিষিদ্ধ হয়েছিলেন ভারতীয় অল-রাউন্ডার হার্দিক পাণ্ডিয়া। এবার তার বড় ভাই ক্রুনাল পাণ্ডিয়াও বড় বিতর্কে জড়িয়ে পড়লেন!

সৈয়দ মুস্তাক আলি ট্রফি খেলতে নামার আগে তার বিপক্ষে বৈষম্যের অভিযোগ তুলেছেন সতীর্থ দীপক হুদা। ক্রুনালের হুমকি-ধামকিতে তিনি বরোদা দল ছেড়ে চলে গেছেন! যিনি এর আগে দলটির অধিনায়ক ছিলেন। দীপক রাজ্য ক্রিকেট সংস্থার কাছেও এই অভিযোগ করেছেন।

স্পোর্টসস্টারের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, নিয়মিত গালিগালাজের শিকার হয়ে দীপক হুদা চরম হতাশায় ভুগছেন। দীপক হুদা বরোদার ক্রিকেট সংস্থার কাছে যে চিঠি লিখেছেন সেখানে সরাসরি তিনি বলেছেন, ‘বরোদার হয়ে গত ১১ বছর ধরে ক্রিকেট খেলছি। বর্তমানে আমাকে সৈয়দ মুস্তাক আলি ট্রফির স্কোয়াডে রাখা হয়েছে। প্রবল চাপে আমি মানসিক অবসাদে ভুগছি। গত কয়েকদিন ধরেই দলের ক্যাপ্টেন মিস্টার ক্রুনাল পাণ্ডিয়া সকলের সামনেই আমাকে গালিগালাজ করছেন। শুধু আমি নয় রিলায়েন্স বরোদা স্টেডিয়ামে যারা আছি তাদের অনেকের উদ্দেশ্যেই তিনি অপমানজনক মন্তব্য করছেন।’

লম্বা চিঠিতে হুদা আরো লিখেছেন, ‘তিনি সবসময়েই আমাকে নীচে নামিয়ে দেওয়ার প্রয়াস চালিয়ে যাচ্ছেন। আমার বরোদার হয়ে খেলার ভবিষ্যৎ নিয়েও শাসানি দিচ্ছেন। এতদিন পর্যন্ত কখনো দলের ভেতরে এত খারাপ পরিবেশ দেখিনি। বরোদার হয়ে সব ধরনের ক্রিকেটে অংশ নিয়েছি। গত সাত বছর ধরে আইপিএলেও খেলছি। ক্রিকেট ক্যারিয়ারেও আমার ভালো অবস্থান আছে। নিজের ক্যারিয়ারে একাধিক আন্তর্জাতিক ক্রিকেট অধিনায়কের নেতৃত্বে খেলেছি। কিন্তু কখনই কোনো দলের নেতা আমার সঙ্গে এভাবে খারাপ ব্যবহার করেননি। সবসময় আমাকে লাঞ্ছনা করা হচ্ছে এমন পরিস্থিতিতে আমার সেরা পারফরম্যান্স মেলে ধরা সম্ভব নয়।’

দীপক হুদার এমন অভিযোগের পর দলের ম্যানেজারের রিপোর্ট চেয়ে পাঠানো হয়েছে। তারপরেই ক্রুনালের বিপক্ষে অভিযোগ খতিয়ে দেখবে বরোদা ক্রিকেট সংস্থা। সিনিয়র অল-রাউন্ডার হিসাবে দীপক হুদা ২ বার ভারতের জাতীয় দলে সুযোগ পেয়েছেন। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ২০১৭-১৮ মৌসুমে টি-টোয়েন্টি স্কোয়াডে জায়গা পেয়েছিলেন তিনি। নিদাহাস ট্রফিতেও তাকে দলে রাখা হয়েছিল যদিও প্রথম একাদশে জায়গা হয়নি। অন্যদিকে ক্রুনাল পাণ্ডিয়া জাতীয় দলের হয়ে ১৮টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছেন। তবে গত একবছর ধরে তিনি জাতীয় দলের বাইরে।