এই সিদ্ধান্তটি সৌম্যর ক্যারিয়ারের জন্যও হুমকি হতে পারে

এবার ‘মধুর সমস্যা’য় পড়েছেন বাংলাদেশ দলের বাঁহাতি ব্যাটসম্যান সৌম্য সরকার। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজের দুটি ম্যাচ খেললেও ব্যাট-বল করতে পারেননি, শুধু ফিল্ডিংই করেছেন তিনি। সফরকারীদের দেওয়া ছোট টার্গেট পূরণে সৌম্যকে ব্যাটিংয়ে নামানোর প্রয়োজন পড়েনি। সিরিজে সৌম্যের ব্যাটিংয়ে অবনমন করা হয়েছে।

সাধারণত টপ অর্ডারে ব্যাট করে থাকেন সৌম্য। মাঝেমধ্যে ওপেনিংও করেন। কিন্তু এই সিরিজে তার পজিশন ব্যাটিং অর্ডার ৬-৭ নম্বরে। কিন্তু প্রথম ম্যাচে ৬ আর দ্বিতীয় ম্যাচে ৭ উইকেটে জিতে সিরিজ নিশ্চিত করে বাংলাদেশ। তাই প্রথম দুই ম্যাচের ব্যাটিং ইনিংসে ড্রেসিংরুমে বা বেঞ্চে বসেই খেলা উপভোগ করতে হয়েছে সৌম্যকে।

এদিকে সৌম্যর এই ব্যাটিং অর্ডার পরিবর্তন নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সাবেক প্রধান নির্বাচক ফারুক আহমেদ। টপ অর্ডারের একজন ব্যাটম্যানকে হঠাৎ ৬-৭ নম্বরে নামানো যুক্তিসঙ্গত নয় বলে মন্তব্য করেছেন তিনি।

সৌম্যকে টেস্টের জন্য ৬ নম্বরে বিবেচনা করা যেতে পারে কিন্তু সীমিত ওভারের ক্রিকেটে এ সিদ্ধান্তকে ভুল বলে মনে করেন এ সাবেক নির্বাচক। সিদ্ধান্তটি সৌম্যর ক্যারিয়ারের জন্যও হুমকি হতে পারে বলে জানান ফারুক।

দেশের ক্রিকেটভিত্তিক এক ওয়েবসাইটের সঙ্গে আলাপকালে ফারুক আহমেদ বলেন, মিডল অর্ডারে খেলা আর টপ অর্ডারে খেলার মধ্যে পার্থক্য আছে।

একজন টপঅর্ডারের ব্যাটসম্যানকে আপনি হুট করে ফিনিশার বানিয়ে দিতে পারেন না। আসলে আমাদের দেশের সবচেয়ে বড় সমস্যা হল আমরা নির্দিষ্ট পজিশনের কোনো খেলোয়াড়কে সেভাবে মূল্যায়ন করি না। আমরা সাব্বিরকে নিয়ে এসেছিলাম, নাসিরকে নিয়ে এসেছিলাম, এরা কিন্তু সবাই ৬-৭ এর প্লেয়ার ছিল। কারণ ছয় নম্বরে তারা খুব ভালো ব্যাটিং করত, স্ট্রোকস খেলতে পারত, বলে বলে রান নিয়ে খেলতে পারত।’