সূর্যের আলোতে প্রতিদিন ১৫ মিনিট থাকার ৯টি উপকারিতা

আমরা বেশিরভাগ সময় বাড়ির ভেতরে থাকি আর বাকি সময় বাড়ির বাইরে কাজে চলে যায়। কিন্তু সানবাথ নেয়ার সময় হয়ে ওঠে না। দুঃখের বিষয়, আজকাল বেশিরভাগ মানুষ ত্বকের সমস্যায় ভোগেন এবং এর অন্যতম কারণ ভিটামিন ডি এর অভাব।

সকালে সূর্যের আলোতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন ডি পাওয়া যায়। নিজের স্বাস্থ্যের কথা বিবেচনা করে প্রতিদিন ১৫ মিনিট রোদে থাকার চেষ্টা করুন।

একটি সানবাথ গ্রহণ আপনার রক্তচাপকে নিয়ন্ত্রণে রাখতে সহায়তা করে:

একটি সানবাথ গ্রহণ ত্বকের শীর্ষতম স্তরে পাওয়া নাইট্রিক অক্সাইডকে সক্রিয় করতে সহায়তা করে। এটি রক্তনালী প্রশস্ত করে রক্ত সঞ্চালন উন্নত করে। সেই সাথে রক্তচাপ পরীক্ষা করতে সহায়তা করে।

ঘুম ভালো হয়:

আপনি যদি অনিদ্রায় ভুগে থাকেন তবে স্লিপিং পিলের পরিবর্তে রোদে থাকার চেষ্টা করুন কিছুক্ষণ। রোদে মেলাটোনিন উৎপাদন করতে সাহায্য করে যা ঘুম ভালো করে।

ত্বকের সমস্যা নিরাময়:

যদি আপনি ভাবেন যে সূর্যের রশ্মি আপনার ত্বকের ক্ষতি করে সেই সাথে আপনার ভাবা উচিত সকালের রোদে গোসল করা আপনার স্কিনের জন্য উপকারী হতে পারে।

সিওরিয়াসিসের ক্লাইমেথোথেরাপির জার্নালে প্রকাশিত একটি সমীক্ষা অনুসারে, একটি সানবাথ আপনার ত্বকের সমস্যাগুলো সমাধান করতে পারে।

এটি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে:

অনেক আগে থেকেই সূর্যালোক রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর জন্য যাদুকরী একটি উপায়।

ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ:

ভিটামিন ডি এর উপস্থিতির কারণে শরীরে ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ হয়।

হাড় শক্তিশালী করে:

ভিটামিন ডি এখানে একটি বড় ভূমিকা পালন করে, কারণ এটি দেহে ক্যালসিয়ামের আরও ভাল শোষণে সহায়তা করে এবং আপনার হাড়কে আগের চেয়ে শক্তিশালী করে তোলে।

মন মেজাজ ভালো রাখে:

একটি সানবাথ গ্রহণ আপনার মন মেজাজকে ভালো রাখে। ১৫ মিনিটের সানবাথ আপনার মন ভালো রাখবে।

চোখের জন্যও উপকারী:

ভিটামিন ডি চোখ ভালো রাখতে সাহায্য করে। মাত্র ১৫ মিনিটের জন্য রোদে দাঁড়িয়ে থাকুন তাহলেই যথেষ্ঠ।

অ্যালঝেইমার হওয়ার সম্ভাবনা কমায়:

আমেরিকান মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন জার্নালে প্রকাশিত একটি সমীক্ষা অনুসারে দেখা গেছে যে, উজ্জ্বল আলোর সংস্পর্শ অ্যালঝেইমার রোগীদের হতাশা এবং ভুলে যাওয়ার লক্ষণ কমায়।