কুকুরের দুধ খেয়ে বেড়ে উঠছে বিড়াল ছানা

কুকুর-বিড়ালের চির শত্রু হলেও সেই শত্রুতার অবসান ঘটিয়েছে একটি পোষা কুকুর ও বেওয়ারিশ বিড়াল ছানা। প্রকৃতির নিয়ম ভেঙ্গে বিড়াল ছানাটিকে মাতৃস্নেহ আর দুগ্ধ দিয়ে বড় করে তুলছে পোষা কুকুরটি।

সোমবার (০৮ ফেব্রুয়ারি) এমন দৃশ্য দেখা যায় পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সর সামনে।

দেখা গেছে, রাত গভীর হলেই হাসপাতালের সামনে ছোট্ট চায়ের দোকানের পাশে দেখা যায় পোষা কুকুর ও একটি বিড়াল ছানাকে। প্রতি মুহুর্তে মায়ের মমতায় আগলে রেখে বিড়াল ছানাকে দুধ খাওয়াচ্ছে কুকুরটি। বিড়াল ছানাটিও বেওয়ারিশ। সন্ধান নেই মা বিড়ালটির। রীতিমত কুকুরটির দুধ পান করেই বেড়ে উঠেছে ছানাটি। মায়া-মমতা সবকিছু দিয়েই আঁকড়ে ধরে রেখেছে কুকুরটি। ছানাটিও অনায়াসে দুধ পান করছে কুকুরটির।

পোষা কুকুরটির মালিক উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সামনের সড়ক লাগোয়া চায়ের দোকানি আশরাফ হোসেন জানান, চার চারটি বাচ্চা প্রসব করলেও কয়েক দিনের মাথায় মারা যায় বাচ্চাগুলো। একা হয়ে পড়ে মা কুকুরটি। তবে বাচ্চাগুলো মারা যাওয়ার কয়েক দিন পরেই অজ্ঞাত ছোট্ট এক বিড়াল ছানা এসে মিলতে থাকে কুকুরটির সঙ্গে। কুকুরটিও রীতিমতো তার বাচ্চাদের হারানোর কষ্ট ভুলে বিড়াল ছানাটিকে দুধ পান করায় মায়ের মমতায়।

তিনি আরও জানান, কুকুরটির দুধ পান করে এখন বেশ বড় হয়ে উঠছে বিড়াল ছানাটি। সারাদিন একসঙ্গে এদিক ওদিক ঘুরাফেরা করলেও রাত হলেই আমার দোকানের পাশে এসে থাকে। প্রতিনিয়ত উৎসুক মানুষ অবাক বিষ্ময়ে দেখছে এ দৃশ্য।

উপজেলার সেভ দি বার্ড এন্ড বি এর পরিচালক এমএ বশার জানান, প্রকৃতির খেয়ালি বিবর্তনের সঙ্গে জীবজন্তুর এহেন আচরণ পরিবর্তন হচ্ছে। তবে কুকুর-বিড়ালের মমতা আর ভালবাসার এমন দৃশ্য থেকে শেখার আছে অনেক কিছুই।