মেসিকে পেতে ভিন্ন পন্থা অবলম্বন করছে পিএসজি

আসন্ন গ্রীষ্ম মৌসুমে ফ্রি ট্রান্সফার সুবিধাতে লিওনেল মেসিকে দলে নেবার আশা এখনো ছাড়েনি ম্যানচেস্টার সিটি। কিন্তু এজন্য তাদেরকে মার্চ-এপ্রিল পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। বিভিন্ন সূত্র এই তথ্য নিশ্চিত করেছে।

৩৩ বছর বয়সী মেসির সাথে বার্সেলোনার বর্তমান চুক্তি আগামী জুনে শেষ হয়ে যাচ্ছে। যে কারনে বিভিন্ন ক্লাবের সাথে আলোচনার জন্য জানুয়ারি মাস থেকে মেসি উন্মুক্ত হয়ে গেছেন। গত বছর আগস্ট থেকে সিটি আর্জেন্টাইন এই সুপারস্টারকে দলে ভেড়ানোর চেষ্টা চালিয়ে আসছিল। কিন্তু সম্প্রতি কিছু সময়ের জন্য আবরো সেই আগ্রহে কিছুটা ভাটা পড়েছিল।

এদিকে মৌসুমের শেষে মেসিকে পাবার জন্য কিছুদিন ধরেই বেশ হইচই ফেলে দিয়েছে পিএসজি। সিটি এক্ষেত্রে পরিস্থিতি বুঝে কিছুটা সময় অপেক্ষা করলেও বিভিন্ন সূত্র নিশ্চিত করেছে পিএসজি সম্পূর্ণ ভুল পন্থা অবলম্বন করে মেসিকে দলে ভেড়ানোর। একটি সূত্র জানিয়েছে, ‘যে ধরনের কৌশল তারা অবলম্বন করেছে তা পুরোপুরি ভুল। গণমাধ্যমে এ ধরনের প্রচার মেসি মোটেই পছন্দ করে না। এমনকি সামান্য কোন প্রতিক্রিয়া তিনি এ ব্যপারে গণমাধ্যম কিংবা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেখতে চাননা।’

পিএসজির স্পোর্টিং ডাইরেক্টর লিওনার্দো নিশ্চিত করেছেন ফরাসি চ্যাম্পিয়নরা মেসির পরিস্থিতি গভীরভাবে পর্যবেক্ষন করছে। এদিকে কোচ মরিসিও পোচেত্তিনো, নেইমার ও এ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া প্রকাশ্যে বলে যাচ্ছেন তারা বার্সা অধিনায়ককে স্বাগত জানাতে উন্মুখ হয়ে বসে আসেন।

এমনকি ডি মারিয়া বলেছেন মেসির পিএসজিতেই আসার বড় সম্ভাবনা রয়েছে। কিন্তু সেক্ষেত্রে পিএসজিকে ক্যাম্প ন্যুর সাথে ২০ বছরের সম্পর্ক শেষে মেসিকে দলে নেবার ব্যপারে সিটির সাথে কঠিন প্রদ্বিন্দিতার মুখোমুখি হতে হবে।

ইএসপিএন’র একটি সূত্র জানিয়েছে সিটি মেসির জন্য এখনো কঠোর অবস্থানে থাকলেও কোন ধরনের আগ্রাসী কৌশল অবলম্বন করতে চাচ্ছেনা। গত বছরও তারা একই ধরনের কৌশল অবলম্বন করে এ ব্যপারে অনেকদুর এগিয়েও গিয়েছিল। ফোনে মেসির সাথে সিটি বস পেপ গার্দিওলা কথাও বলেছেন।

রোনাল্ড কোম্যানের বার্সেলোনা বর্তমানে লা লিগায় দুর্দান্ত ফর্ম ধরে রেখে টানা ১১ ম্যাচে অপরাজিত রয়েছে। আগামী সপ্তাহে কোপা ডেল রে’র সেমিফাইনালে সেভিয়ার বিপক্ষে ম্যাচটি ছাড়াও চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শেষ ১৬’র প্রথম লেগের লড়াইয়ে পিএসজির মোকাবেলা করবে কাতালান জায়ান্টরা। বার্সার হয়ে বরাবরের মতই এবারের মৌসুমে নিজেকে প্রতিদিনই প্রমান করে চলেছেন মেসি। আগামী ৭ মার্চ বার্সেলোনার বহুল প্রতিক্ষিত সভাপতি নির্বাচনের ওপরও মেসির ভবিষ্যত অনেকটাই নির্ভর করছে।