আইপিএল নিলামে বাংলাদেশের চার ক্রিকেটার

আইপিএল নিলামে উঠবেন মোট ২৯২ জন ক্রিকেটার। তার মধ্যে আছেন বাংলাদেশের চার জন। আছেন শচিন তেন্ডুলকরের ছেলে অর্জুন। খবর ডয়চে ভেলের।

নিলামে ওঠার আবেদন করেছিলেন মোট এক হাজার ১১৪ জন ক্রিকেটার। তবে শিকে ছিঁড়ল মাত্র ২৯২ জনের। তার মধ্যে ১৬৪ জন ভারতীয়, বাকিরা বিদেশি। সেই বিদেশিদের তালিকায় আছেন চার জন বাংলাদেশের ক্রিকেটার। সাকিব আল-হাসান, মাহমুদুল্লাহ, মুস্তাফিজুর ও মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন।

এই চার ক্রিকেটারের মধ্যে সব চেয়ে অভিজ্ঞ সাকিব। তিনি ইতিমধ্যে ৬৩টি আইপিএলের ম্যাচ খেলে ফেলেছেন। তাঁর বেস প্রাইস রাখা হয়েছে দুই কোটি। নিলামের বেস প্রাইসের ক্ষেত্রে দুই কোটি হলো সর্বোচ্চ। অলরাউন্ডার সাকিব সর্বোচ্চ বেস প্রাইসই পেয়েছেন। মুস্তাফিজুর এর আগে আইপিএলে ২৪টা ম্যাচ খেলেছেন মুম্বই ইন্ডিয়ান ও সানরাইজার্স হায়দরাবাদের হয়ে। তাঁর বেস প্রাইস এক কোটি টাকা।

মাহমাদুল্লাহ এর আগে আইপিএল খেলেননি। তবে বাংলাদেশের হয়ে ৪৯টা টেস্ট, ১৯১ ওয়ান ডে এবং ৮৭টা টি২০ খেলে ফেলেছেন। তাঁর বেস প্রাইস রাখা হয়েছে ৭৫ লাখ। সইফুদ্দিনও আইপিএল খেলেননি। তরুণ এই ডানহাতি মিডিয়াম পেসার ২৩টা ওয়ান ডে এবং ১৫টা টি২০ খেলেছেন। তাঁর বেস প্রাইস ধার্য করা হয়েছে ৫০ লাখ।

বাংলাদেশের চার ক্রিকেটারের মধ্যে সাকিব ও মুস্তাফিজুর অভিজ্ঞ। মাহমাদুল্লাহ ও সাইফুদ্দিন তরুণ। সম্প্রতি ওয়েস্ট ইন্ডিজের সঙ্গে টেস্টে মাহমাদুল্লাহ ভালো বল করেছেন। তিনি ও সাইফুদ্দিন রীতিমতো প্রতিশ্রুতিবান। তবে নিলামে কোনো টিম তাঁদের নিলে তবেই তাঁরা আইপিএলে খেলার সুযোগ পাবেন। পশ্চিমবঙ্গের ক্রিকেটার প্রয়াস বর্মন ও অনুষ্টুপ মজুমদারের নাম নিলামের তালিকায় আছে।

ভারতীয় ক্রিকেটারদের মধ্যে সচিন তেন্ডুলকরের ছেলে অর্জুনের নামও নিলামের তালিকায় আছে। অর্জুন এখনো পর্যন্ত ভারতের হয়ে খেলেননি। মুম্বই রঞ্জি ট্রফি টিমেও এবার সুযোগ পাননি। তবে সৈয়দ মুস্তাক আলি টুর্নামেন্টে দুইটি ম্যাচে দুই উইকেট পেয়েছিলেন। ২১ বছর বয়সী অলরাউন্ডার এবং সচিন-পুত্রের বেস প্রাইস হলো ২০ লাখ টাকা।

তালিকায় নাম আছে চেতেশ্বর পূজারার। ৩৩ বছর বয়সী এই ক্রিকেটারকে বলা হয় টেস্ট ম্যাচের জন্য আদর্শ। তাই টি২০-তে তিনি ততটা আমল পান না। দীর্ঘদিন পর তিনি আইপিএলের নিলামে উঠবেন। সুযোগ পেয়েছেন ২৭ বছর বয়সী উইকেটকিপার মোহাম্মদ আজহারউদ্দিন। হরভজনের নামও তালিকায় আছে, তাঁর বেস প্রাইস দুই কোটি। অস্ট্রেলিয়ায় মাটি কামড়ে পড়ে থেকে অসুস্থ হয়েও ভারতের হার বাঁচিয়েছিলেন হনুমা বিহারী। তাঁর বেস প্রাইস দেড় কোটি টাকা। তবে তালিকায় শ্রীসন্থের নাম নেই।

যে সব ক্রিকেটারকে ফ্র্যাঞ্চাইজি ছেড়ে দিয়েছে বা গতবার সুযোগ পাননি, সেই সব ক্রিকেটারের নামই নিলাম তালিকায় আছে। যাঁদের ফ্র্যাঞ্চাইজি রেখে দিয়েছে, তাঁদের নাম নেই। চেন্নাইতে ১৮ ফেব্রুয়ারি নিলাম হবে। তখন বোঝা যাবে, কারা আইপিএলের টিমে খেলার সুযোগ পেলেন। নিলামে ক্রিকেটার কেনার জন্য সব চেয়ে বেশি অর্থ আছে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের হাতে, ৫৩ কোটি ২০ লাখ। তারপর রাজস্থান রয়্যালস ৩৭ কোটি ৮৫ লাখ এবং রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর ৩৫ লাখ। সব চেয়ে কম অর্থ আছে কলকাতা নাইট রাইডার্সের হাতে, মাত্র ১০ কোটি ৭৫ লাখ।