৮ দিন আগে হয়েছে বিয়ে, মেহেদির রং না শুকাতেই বিধবা হলো নববধূ

সদ্য বিবাহিত সোহাগ-সাথী দ’ম্প’তি শুক্রবার মোটরসাইকেল করে ঘুরতে বের হয়েছিলেন। কিন্তু লা’’শ হয়ে বাড়ি ফিরলেন সোহাগ।

মেহেদির রং না শু’কা’তেই ঘা’’ত’ক নসিমন কে’ড়ে নেয় ভোলার বোরহানউদ্দিন উপজেলার সোহাগের (২৫) প্রাণ। স্বামী হা’রা’লেন সাথী। সোহাগ টবগী ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের আবু তাহেরের ছেলে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা ও স্থানীয়রা জানান, শুক্রবার এ দম্পতি মোটরসাইকেল যোগে বোরহানউদ্দিনে ঘুরতে আসেন। সন্ধ্যায় বোরহানউদ্দিন থেকে টবগী ইউনিয়নের নিজ বাড়িতে ফেরার পথে আবুল বাজার নামক স্থানে বিপরীত দিক থেকে আসা নসিমনের সঙ্গে ধা’ক্কা লাগে সোহাগের মোটরসাইকেলের।

এতে ঘটনাস্থলে সোহাগ মা”রা যান। স্থানীয়রা তাকে উ’দ্ধা’র করে বোরহানউদ্দিন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আনলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃ’ত ঘোষণা করেন। এদিকে, মা”রাত্ম’ক আ’হ’ত হয়েছেন তার স্ত্রী সাথী বেগম।

বোরহানউদ্দিন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক উপ-সহকারী মেডিক্যাল অফিসার আবুল কালাম আজাদ জানান, হাসপাতালে পৌঁছার আগেই সোহাগ ‘মা”রা যান। তার স্ত্রী সাথী মা”রা’ত্ম’ক আ’হ’ত হওয়ায় ভোলা সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

নি’’হ’তে’র শশুর মুন্সিগঞ্জ জেলার টঙ্গীবাড়ী থানার মিলন ব্যাপারী জানান, তার মেয়ে সাথীর সাথে ভোলার বোরহানউদ্দিন উপজেলার সোহাগের মাত্র ৮ দিন আগে বিয়ে হয়। বোরহানউদ্দিন থানার অফিসার্স ইনচার্জ বশির আলম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, অভি’যোগ পেলে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।