এক জালে রাতারাতি লাখপতি হয়ে গেলেন গফুর

এক জালে ভাগ্য খুলে গেছে জেলে গফুরের। সুন্দরবন সংলগ্ন সাগরের কচিখালির চর এলাকায় জেলে আব্দুল গফুরের জালে ধরা পড়েছে ভোলা মাছের ঝাঁক। এর ফলে ভাগ্য খুলেছে জেলে তার।

সাতক্ষীরার আশাশুনি উপজেলার প্রতাপনগর গ্রামের আব্দুল গফুর জানান, তিনি সাগরে মাছ ধরে জীবিকা নির্বাহ করেন।

মাছ ধরতে কয়েকদিন ধরে সাগরে অবস্থান করছেন। এরমধ্যে সুন্দরবন সংলগ্ন সাগরের কচিখালি এলাকায় জাল পাতলে একবারে ধরা পড়ে ৭২টি ভোলা মাছ।

মাছগুলোর ওজন প্রায় ৮০০ কেজি। প্রতি কেজি মাছ ৬শ’ টাকা থেকে ৬৫০ টাকা দরে বিক্রি হয়েছে। সবমিলিয়ে আয় হয়েছে প্রায় ৫ লাখ টাকা।

শ্যামনগরের সোনার মোড়ের মদিনা ফিস মৎস্য আড়ত থেকে ব্যবসায়ী আশরাফ হোসেন মাছগুলো কিনে পাঠিয়েছেন চট্টগ্রামে। মাছ বিক্রি করে একসঙ্গে মোটা অংকের টাকা পেয়ে জেলে আব্দুর গফুরের পরিবারে এখন আনন্দের জোয়ার বইছে।

ব্যবসায়ী আশরাফ হোসেন জানান, সামুদ্রিক মাছ হিসেবে ভোলা মাছ খেতে বেশ সুস্বাদু। স্বাদের পাশাপাশি এই মাছের চাহিদা ও দাম চড়া হওয়ার মূল কারণ হলোএ মাছের ফুলকা ভারতসহ বিভিন্ন দেশে রফতানি হয়। গ্রেড অনুযায়ী প্রতি কেজি ফুলকার মূল্য ২৫ থেকে ৩০ হাজার টাকা। ভোলা মাছের ফুলকা দিয়ে প্রসাধনী ও মূল্যবান ওষুধ তৈরি হয় বলে জানালেন তিনি।