দুর্দান্ত মেসিতে উড়ন্ত বার্সেলোনা

বার্সেলোনার সময়টা ঠিকঠাক কাটছে না অনেকদিন ধরেই। তবে ক্লাবটির যেকোনো সমর্থকই চাইবেন শনিবার রাতের মতোই কাটুক তাদের পুরো মৌসুম। এমন দুর্দান্ত লিওনেল মেসি ও ক্লাবের উড়তে দেখাই তো তাদের চাওয়া।

শনিবার রাতে নিজেদের মাঠ ন্যূ ক্যাম্পে দেপোর্তিভো আলাভেসকেস ৫-১ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে কাতালানরা। নিজে দুই গোল করেছেন, সতীর্থদের দিয়ে গোল করিয়েছেনও লিওনেল মেসি। বার্সেলোনার ইতিহাসে সর্বোচ্চ ৫০৫টি লা লিগার ম্যাচ খেলা চাভি এরনান্দেসকে। আলাভাসের বিপক্ষে ম্যাচে তাকে স্পর্শ করেছেন মেসি।

এই ম্যাচের শুরু থেকেই আধিপত্য বিস্তার করে খেলতে থাকে বার্সেলোনা। বল দখলেও এগিয়ে ছিল তারা। প্রথমে ম্যাচের ২৯ মিনিটে এগিয়ে যায় বার্সেলোনা। শুরু থেকে রক্ষণ সামলানোর পাশাপাশি পুরো মাঠে ছোটাছুটি করা অস্কার মিনগেসা ডান দিক থেকে ক্রস বাড়ান।

বাঁ দিকে ডি-বক্সে ফাঁকায় বল পেয়ে মাঝ বরাবর বাড়ান তরুণ মিডফিল্ডার ইলাইস মোরিবা। নিচু শটে জটলার মধ্যে দিয়ে জালের ঠিকানা খুঁজে নেন ত্রিনকাও। এর আগে ১৮ ম্যাচে মাঠে নামলেও এটিই ছিল ত্রিনেকাওয়ের প্রথম একাদশে সুযোগ পাওয়া প্রথম ম্যাচ।

এরপরের পাঁঁচ মিনিটে বার্সেলোনার পক্ষে ম্যাচের স্কোরশিটে যোগ হতে পারতো আরও দুইটি গোল। ৩৫তম মিনিটে গ্রিজম্যানের শট গোলরক্ষক ঠেকানোর পর ফিরতি বল জালেও পাঠিয়েছিলেন মেসি। তবে ভিএআরের সাহায্যে অফসাইডের বাঁশি বাজান রেফারি।

বিরতির আগেই নিজের জাদু দেখাতে শুরু করেন মেসি। সার্জিও বুসকেটসের পাস পেয়ে জায়গা বানিয়ে প্রায় ৩০ গজ দূর থেকে ট্রেডমার্ক শটে লক্ষ্যভেদ করেন আর্জেন্টাইন অধিনায়ক। এটি টানা পঞ্চম ম্যাচে গোল তার।

বিরতির পর গোল খেয়ে বসে বার্সেলোনাা। মোরিবার ভুল পাস ধরে দ্রুত ডি-বক্সে ঢুকে বাঁ পায়ের শটে গোল করেন আলাভাসের লুইস রিওহা। এই গোলই যেন আরও তাতিয়ে দেয় বার্সেলোনাকে। বাকি ম্যাচে আর প্রতিপক্ষকে পাত্তাই দেয়নি তারা।

আক্রমণে ব্যতিব্যস্ত করে রাখে আলাভাসের রক্ষণ। কিন্তু গোলের দেখা পাওয়া যাচ্ছিলো না। ৭৪ মিনিটে দেখা মিলে প্রত্যাশিত সেই গোলের। মাঝমাঠ থেকে পেদ্রির দারুণ থ্রু পাস ধরে ডি-বক্সে ঢুকে পড়েন মেসি, তার সামনে তখন শুধুই গোলরক্ষক, কিন্তু ঠিক সময়ে শট নিতে পারেননি বার্সা অধিনায়ক। পাচেকো বলে পা লাগালেও বিপদ কমাতে পারেননি। ফাঁকায় বল পেয়ে প্লেসিং শটে গোল করেন ত্রিনকাও।

এই গোলের এক মিনিট পার না হতেই ফের গোলের দেখা পায় বার্সেলোনা। এবার জাল খুঁজে নেন মেসি। বাঁ পায়ের উঁচু শটে বোকা বানান আলাভাস গোলরক্ষককে। গোছানো আক্রমণে ৮০তম মিনিটে স্কোরলাইন ৫-১ হয়। ডি-বক্সে মেসির চিপে ডান দিকে বল পেয়ে ছয় গজ বক্সে বাড়ান গ্রিজমান। বাকি কাজটুকু সারেন ফিরপো।

এই জয়ে চিরপ্রতিদ্বন্দী রিয়াল মাদ্রিদকে টপকে লা লিগার পয়েন্ট টেবিলের দ্বিতীয় স্থানে উঠে এসেছে বার্সেলোনা। ২২ ম্যাচে দুই দলেরই অবশ্য পয়েন্ট সমান ৪৬। ২১ ম্যাচে ১৭ জয় ও তিন ড্রয়ে ৫৪ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের শীর্ষে আছে অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদ।