যে’ভাবে মা’রা গেল ৩০২ কে’জি ওজনের মাখন মিয়া

অ’স্বাভাবিক ওজন নিয়ে জীবন যু’দ্ধে হেরে অবশে’ষে পৃথিবী থেকে বিদায় নিলেন ৩০২ কেজি ওজনের ব্রা’হ্মণবাড়িয়ার মাখন মিয়া (৪০)।

সোমবার রাত ১০টার দিকে ব্রা’হ্মণবাড়িয়া সদর জেনারেল হাসপাতালে মৃ’ত্যুবরণ করেন তিনি।মাখন মিয়া ব্রা’হ্মণবাড়িয়া পৌর শহরের দক্ষিণ মৌড়াইলের মিলন মিয়ার ছেলে। মাখন মিয়ার ওজন শুরুতে স্বাভাবিক থাকলেও পরে ধীরে ধীরে তা বাড়তে থাকে। মৃ’ত্যুকালে তার ওজন দাঁড়ায় ৩০২ কেজি।

অ’স্বাভাবিক এই ওজন নিয়ে মানবেতর দিন কা’টাচ্ছিলেন মাখন মিয়া। অবশে’ষে ওজনের কারণে জীবন যু’দ্ধে হে’রে মৃ’ত্যুর কোলে ঢলে পড়েন মাখন মিয়া।মাখন মিয়ার পরিবার জানায়, গত কয়েক দিন যাবত মাখন মিয়া শ্বাসক’ষ্ট ও হৃদরোগে ভু’গছিলেন। ২০ বছর বয়স পর্যন্ত স্বাভাবিকই ছিলেন মাখন মিয়া। তারপর হ’ঠাৎ বাড়তে থাকে তার শরীরের ওজন। শে’ষ পর্যন্ত তার ওজন ৩০২ কেজিতে ঠেকে।

চিকিৎসাও করেছেন একাধিকবার, কিন্তু অ’স্বাভাবিক ওজনের কারণে ব্যাহত হচ্ছিল চিকিৎসা। তার চিকিৎসা ব্যয় বহন করতে গিয়ে এখন নিঃস্ব মাখন মিয়ার পরিবার। দুই সন্তান ও স্ত্রী নিয়ে খেয়ে পরে বেঁ’চে থাকাই ছিল ক’ষ্টকর।এই ব্যাপারে ব্রা’হ্মণবাড়িয়া সদর জেনারেল হাসপাতালের জরুরী বিভাগ কর্তব্যরত চিকিৎসক আব্দুল্লা’হ আল মামুন জানান, সোমবার রাতে মাখন গুরুতর অ’সুস্থ হয়ে পড়লে তাকে হাসপাতালে নিয়ে আসেন।

তার ওজনের কারণে হাসপাতালের ভেতরে জরুরী বিভাগে ঢুকানো সম্ভব হয়নি। হাসপাতালের গেটেই তাকে চিকিৎসা দিতে হয়েছে। তিনি বলেন, মাখনের শ্বাসক’ষ্ট সম’স্যা ছিল। হাসপাতালে তার বুকে ব্য’থা ছিল। নিয়ে আসার কিছুক্ষণ পর ইসিজি করার পর তার মৃ’ত্যু নিশ্চিত নিশ্চিত করেন এই চিকিৎসক।