জামালপুরের সেই ডিসির বেতন অর্ধেক

জামালপুরের নারী কেলেঙ্কারি আলোচিত সাবেক জেলা প্রশাসক আহমেদ কবীরের বেতন কমিয়ে আর্ধেক করেছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়।

উপসচিব পদে বহাল থাকলেও নারী অফিস সহকারীর সঙ্গে অনৈতিক সম্পর্কের অপরাধে সিনিয়র সহকারী সচিবের সমান বেতন পেতে হচ্ছে তাকে।

সরকারি কর্মচারী (শৃঙ্খলা ও আপিল) বিধিমালা-২০১৮-এর বিধি ৪(৩) (ক) মোতাবেক তার এই শাস্তি দেওয়া হয়েছে। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, আহমেদ কবীরের পরিবার ও সন্তানদের সামাজিক অবস্থার কথা বিবেচনায় তাকে চাকরিচ্যুত না করে বেতন অর্ধেকে নামিয়ে আনার শাস্তি দেওয়া হয়েছে।

উপসচিব হিসেবে তিনি বর্তমানে পঞ্চম গ্রেডে বেতন পান। শাস্তির কারণে তিনি এখন ২০১৫ সালের জাতীয় বেতন স্কেল অনুযায়ী ষষ্ঠ গ্রেডের সর্বনিম্ন ধাপের বেতন পাবেন।

সম্প্রতি জনপ্রশাসন সচিব শেখ ইউসুফ হারুন গণমাধ্যমকে জানান, অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় তাকে এ শাস্তি দেওয়া হয়েছে।

তিনি যে অপরাধ করেছেন তা পুরো প্রশাসনকে কলঙ্কিত করেছেন। তার পরিবার ও সন্তানের ভবিষ্যৎ চিন্তা ও সার্বিক বিষয় বিবেচনা করেই এ শাস্তি দেওয়া হয়েছে।

তিনি আর কখনো পদোন্নতি পাবেন না। এই পদ থেকেই তাকে চাকরি থেকে বিদায় নিতে হবে। বেতনও প্রায় অর্ধেকে নেমে আসবে।