তরমুজ বীজের অবিশ্বাস্য ৪ উপকারিতা

বিদায় নিয়েছে শীত। শীত বিদায় নিয়ে গরমের আগমন ঘটল। আর গরম মানেই বাহারি স্বাদের রসালো ফল। এই সময় বাজারে তরমুজেরও চাহিদা থাকে বেশ।

কারণ গরমে আরাম দিতে তরমুজের জুড়ি নেই। নানান গুণে পরিপূর্ণ রসালো ফল তরমুজ। আমরা তরমুজ খেলেও এর বীজ ফেলে দেই। কারণ এর ব্যবহার সম্পর্কে আমরা অবগত নই।

কিন্তু জানেন কি, তরমুজের মতো এর বীজেরও রয়েছে নানা গুণাগুণ। তরমুজের বীজে রয়েছে প্রোটিন, ভিটামিন, ওমেগা-৩ এবং ফ্যাটি অ্যাসিড, ম্যাগনেশিয়াম, জিঙ্ক, কপার, পটাশিয়াম।

চলুন এবার জেনে নেয়া যাক তরমুজ বীজের অবিশ্বাস্য চার উপকারিতা সম্পর্কে-

আয়রনের ঘাটতি দূর হয় : একাধিক গবেষণা অনুসারে, প্রতিদিন এক মুঠো করে তরমুজের বীজ খাওয়া শুরু করলে দেহের আয়রনের ঘাটতি দূর হয়। ফলে লোহিত রক্ত কণিকার উৎপাদান এত মাত্রায় বেড়ে যায় যে অ্যানিমিয়ার রোগ ধারে কাছেও ঘেঁষতে পারে না।

ব্রণের প্রকোপ কমায় : ব্রণের প্রকোপ কমাতে তরমুজের বীজ অত্যন্ত উপকারী। তাই প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় তরমুজ রাখতে পারেন। এটি ত্বকের ভেতরে পুষ্টির ঘাটতি দূর করার পাশাপাশি ক্ষতিকর জীবাণুদের মেরে ফেলে। ফলে ব্রণের প্রকোপ কমে।

ত্বকের তৈলাক্ত ভাব কমায় : ত্বকের তৈলাক্ত ভাব কমাতে তরমুজ খাওয়ার পাশাপাশি বীজও খাওয়া শুরু করুন। উপকার মিলবে হাতেনাতে। এর মধ্যে থাকা ভিটামিন এ, স্কিন পোরের সাইজ কমিয়ে দেয়। ফলে তেলের ক্ষরণ কমতে শুরু করে। ফলে তেলতেলে ত্বকের সমস্যা দূর হয়।

ক্লান্তি দূর হয় : বেশ কিছু স্টাডিতে দেখা গেছে, এক কাপ তরমুজের বীজ খেলে এত মাত্রায় এনার্জির ঘাটতি দূর হয় যে শরীরের সার্বিক ক্ষমতা বাড়তে সময় লাগে না। তবে এক্ষেত্রে একটি বিষয় মাথায় রাখতে হবে, তা হলো বেশি মাত্রায় তরমুজের বীজ খেলে ওজন বৃদ্ধি পেতে পারে। তাই ভুলেও বেশি পরিমাণ বীজ খাওয়া যাবে না। সূত্র: বোল্ডস্কাই