আমেরিকার কলোরাডোয় সুপারসার্কেটে গুলি, মৃত বহু

আমেরিকার কলোরাডোর বৌল্ডার শহর। সেখানেই একটি সুপারমার্কেটে গুলি চালালো এক মধ্যবয়স্ক ব্যক্তি। পরে আহত অবস্থায় একজনকে ধরেছে পুলিশ।

ধৃত ব্যক্তিই গুলি চালিয়েছে বলে পুলিশের সন্দেহ। খবর এএফপি, এপি ও নিউ ইয়র্ক টাইমসের।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, হঠাতই তারা লাগাতার গুলির আওয়াজ পান। সামাজিক মাধ্যমে দেয়া ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, অন্তত তিনজন মেঝেতে পড়ে আছেন। আর এক ব্যক্তিকে হাতকড়া সহ পুলিশ ধরে নিয়ে যাচ্ছে। তার একটা পা থেকে রক্ত পড়ছে। পুলিশ জানিয়েছে, ওই ব্যক্তির চিকিৎসা চলছে।

তবে কতজন মারা গেছেন তা পুলিশ জানায়নি। নিউ ইয়র্ক টাইমস জানাচ্ছে, অন্ততপক্ষে দশজন মারা গেছেন। তার মধ্যে একজন পুলিশ কর্মী। বন্দুকধারী গুলি চালাচ্ছে খবর পেয়ে ওই পুলিশ কর্মী প্রথমে ঘটনাস্থলে পৌঁছান।

সুপারমার্কেটের কর্মী অ্যালেক্স জানিয়েছেন, ”একের পর এক গুলির শব্দ শুনি। তারপরই দেখি মানুষ বেরোবার চেষ্টা করছেন। ভেবেছিলাম, আমিও মারা যাব।”

এই সুপারমার্কেট স্টোরটি কলোরাডো বিশ্ববিদ্যালয়ের কাছে, একটি আবাসিক এলাকার ভিতর। সেখানে ছাত্র ও আবাসিকদের ভিড় লেগে থাকত। পুলিশ গিয়ে ওই স্টোর থেকে বেশ কিছু মানুষকে নিরাপদ জায়গায় সরিয়ে নেয়।

কুইনলিন ও নেভান ওই সময় সুপারমার্কেট স্টোরে ছিলেন। তারা জানিয়েছেন, প্রথমে তারা একটা শব্দ শোনেন। তারপর দেখেন, মানুষ ছুটে পালাতে শুরু করেছে। তারপর অন্তত ১৫-২০ বার গুলির শব্দ শোনেন। তখন নেভান দ্রুত কুইনলিনকে নিয়ে বাইরে চলে আসেন। সোজা পার্কিং লটে যান। সেখানে গিয়ে বীভৎস ছবি দেখেন। যারা সুপারমার্কেটে বাজার করতে এসেছিলেন, তাদের কয়েকটি দেহ তারা পড়ে থাকতে দেখেন।

পুলিশ জানিয়েছে, তদন্ত চলছে। তারপর তারা বলতে পারবে, কেন গুলি চলানো হয়েছিল?