জামাইয়ের প্রেমে মত্ত শাশুড়ি! মেয়ের হানিমুনে গিয়ে গর্ভবতী হলেন মা

বিয়ের পর হানিমুনে গিয়ে শাশুড়ির সঙ্গে যৌন মিলনে লিপ্ত হলেন নতুন বর! এখানেই শেষ নয়, ‘শাশুড়ি জামাইয়ের কীর্তি’তে অন্তঃসত্ত্বাও হয়ে পড়েন শাশুড়ি। কি অবাক হচ্ছেন? ভাবছেন এমনটাও হয় নাকি?

হ্যা, এমনটাই হয়েছে ইংল্যান্ডে। দেশটির লন্ডনের বাসিন্দা লরেন ওয়াল ও পল হোয়াইটের মধ্যে বেশ কদিন ধরে চলে প্রেম। তারপর একদিন এক রেস্টুরেন্টে ডেটে যেয়ে লরেনকে বিয়ের প্রস্তাব দেন পল।

এরপর লরেনের মা জুলি ১৫ হাজার পাউন্ড (বাংলাদেশি মুদ্রায় ১৫ লাখ টাকা প্রায়) খরচ করে বিয়ে দেয়। বিধবা মায়ের এমন কাজে খুশি হয়ে তাকে হানিমুনে নিয়ে গিয়েছিল মেয়ে। আর তাতেই বাধে বিপত্তি।

নিতান্তই ভালমানুষ, ভীষণরকম কেয়ারিং মনে হতো স্বামী পল-কে। কিন্তু এরপর তিনি যে কাণ্ডখানা ঘটালেন তা কল্পনাও করতে পারেননি লরেন ওয়াল।

জানা যায়, মধুচন্দ্রিমার প্রথম দিন পার্টিতে মেতে উঠেছিলেন স্বামী-স্ত্রী ও শাশুড়ি! চলছিল সমান তালে মদ্যপান। এরপর মা- মেয়ে যে-যার ঘরে ঢুকে পড়েন।

এরপর গভীর রাতে মদ্যপ অবস্থায় শাশুড়ির ঘরে ঢুকে উত্তাল যৌন মিলন শুরু করে জামাই-শাশুড়ি। আর তাতে অন্তঃসত্ত্বাও হয়ে পড়ন শাশুড়ি। তবে সেদিনের ঘটনা জানতে পারেননি লরেন।

লরেন-পলেরও এক মেয়ে ছিল। হানিমুন শেষে ফেরার ৮ সপ্তাহ পর লরেন ও মেয়েকে ছেড়ে চলে যান পল। আর ৯ মাস পর মেয়ের স্বামীর বাচ্চা জন্ম দেন মা জুলি। সে সময় জুলি ও পল নিজেদের দম্পতি বলে উপস্থাপন করেন।

পল ও লরেনের বিয়ে হয় ২০০৪ সালে। তার ঠিক ৫ বছর পর ২০০৯ সালে লরেনের মাকে বিয়ে করেন পল। এতদিন এ ঘটনা জনসমক্ষে আসেনি। সম্প্রতি লরেন বিষয়টি নিয়ে মুখ খোলেন।

লরেন এখনও নিজেকে গুছিয়ে নেয়ার চেষ্টা করছেন। স্বামী কেড়ে নেয়া নিজের মাকে তিনি কোনোদিন ক্ষমা করতে পারবেন না বলে জানিয়েছেন। সূত্র : মিরর