আলোচনায় আসতে বৃদ্ধকে বাঁচানোর মিথ্যা বানোয়াট গল্প প্রচার নোবেলের!

ভারতের একটি টেলিভিশনের রিয়েলিটি শো থেকে আলোচনায় উঠে আসেন বাংলাদেশের তরুণ শিল্পী মাঈনুল আহসান নোবেল। সড়ক দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন তিনি।

শুক্রবার (২৩ এপ্রিল) সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুকে বেলা সাড়ে এগারোটার দিকে খবরটি জানান সঙ্গীত জগতের বিতর্কিত এই গায়ক।

তিনি লেখেন, ‘এক বয়স্ক লোক অসতর্ক ভাবে রাস্তা পার হচ্ছিলো। তাকে বাঁচাতে গিয়ে আমার মাথার তালুতে ১২টা, বাম পাশের ভ্রু-তে ১৮টা, মোট ৩০ টা সেলাই পড়েছে। তবুও মনে তৃপ্তি অনুভব করছি কারন লোকটা নিরাপদ আছে। আর আমি আপনাদের দোয়ায় ভালো আছি আলহামদুলিল্লাহ্।‘

এর আগে মধ্য রাতে নিজের ফেসবুকে একটি সেলফি প্রকাশ করেন নোবেল। ছবিতে নোবেলের গায়ে রোগীদের পোশাক দেখা যাচ্ছে। তার এক চোখ পুরোটা ব্যান্ডেজ করা।

হাতে রয়েছে টাকার বান্ডেল। ছবির ক্যাপশনে নোবেল লেখেন, ‘আসসালামু আলাইকুম। শুভ রাত্রি। সড়ক দুর্ঘটনায় রাস্তাটি গুরুতরভাবে আহত হয়েছেন। রাস্তাটির জন্য দোয়া করবেন।‘

কিন্তু এরপরই শোয়াইব বিন আহসান নামে একজন প্রত্যক্ষদর্শী তার ফেসবুক প্রোফাইলে নোবেলের ওই পোস্ট শেয়ার করে তার বিরুদ্ধে মিথ্যাচারের অভিযোগ তোলেন।

শোয়াইব লিখেছেন, ‘রং সাইডে বাইক চালিয়ে সাইকেল আরোহী রোজাদারের ওপর দিয়ে এভাবেই বাইকটা চালাইয়া দিলা। যেখানে লোকটা সারাদিন রোজা রাখার পর ইফতার করে তার ক্ষুধা নিবারনের কথা, সেখানে লোকটা মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে।

আর তুমি একজন রোজাদারকে মৃত্যু পথযাত্রী বানাইয়া আরেকজন বৃদ্ধকে জীবনদানের গল্প শুনাও! কী সুন্দর মিথ্যাচার করে আবার আল্লাহর শুকরিয়া আদায় করছে !’

সেই পোস্টের কমেন্টে তিনি আরও জানান, ‘গতকাল (বৃহস্পতিবার) ইফতারের আগ মুহূর্তে একটা লোক সাইকেলে করে কলা, খেজুর, ছোলা মানে ইফতার সামগ্রী নিয়ে যাচ্ছিলো। নোবাল ম্যান রং সাইড থেকে বাইক দিয়া মেরে দিছে (আমার সামনেই ঘটনা)।

২ জনই ইনজুরড হইছে, কিন্তু লোকটার অবস্থা খুব সিরিয়াস। আর ওনার সাইকেলের যা অবস্থা হইছে, কোনো ভাংগারির দোকানেও নিবে না। পরে ২/৩ জন লোক দিয়ে ওনাকে ল্যাবএইড পাঠাইলাম। নোবাল ম্যানকেও বললাম আপনি বাইকটা আমাদের এখানে রেখে ল্যাবএইড যান।

উনি আমাদের কথা না শুনে কৌশলে বাইক নিয়ে চলে গেছে। যাওয়ার সময় আমাদের এখান থেকে একজনরে তার সাথে পাঠাইলাম। বনানী নিয়া ওনারেও আটকাইয়া রাখছে। এই হইলো কাহিনী!’

তিনি আরও জানান, ‘সাইকেলওয়ালা লোকটির বয়স আনুমানিক ২৫-৩০ বছর। কোনোভাবেই বৃদ্ধ নন। দুর্ঘটনাস্থলের পাশেই একটি বাড়িতে সিসিটিভি রয়েছে। তার ফুটেজ চেক করলেই বিষয়টি পরিষ্কার হয়ে যাবে।’