নাকের লোম ওঠানোর সময় যেসব ভুল করবেন না

বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে নাকের লোমগু’লো আগের চেয়ে অনেক বেশি ঘন হয়ে ওঠে। এটি পু’রুষের হরমোন অ্যান্ড্রোজেনের কারণে চুলের ফলিকলগু’লো সময়ের সঙ্গে সঙ্গে আরও সংবেদনশীল হয়ে ওঠে।

অনেক সময় দেখা যায় লোমগু’লো বড় হয়ে নাকের বাইরে বের হয়ে আসছে।

নাকের লোম নিয়ে অনেকেই বিব্রতকর পরিস্থিতির মধ্যে পড়েন। এজন্য লোম বড় ‘হতেই অনেকেই বিভিন্ন উপায়ে তা তোলার চে’ষ্টা করে থাকেন। তবে জানেন কি, সঠিক উপায়ে নাকের লোম তোলা না হলে মা’রাত্মক বিপদ ‘হতে পারে! কয়েকটি কৌশল আছে, যেগু’লো ব্যবহার করে কখনো নাকের লোম ওঠানো উচিত নয়।

টুইজার ব্যবহার করবেন না-বেশিরভাগ মানুষই টুইজার ব্যবহার করে নাকের লোম তুলে থাকেন। এতে প্রচণ্ড ব্যথা সহ্য করতে হয়। এ ছাড়াও টুইজার ব্যবহারের ফলে একসঙ্গে অনেকগু’লো লোম ওঠায় নাকের ভেতরের ত্বকে কিছুটা সংক্রমণও ‘হতে পারে।

ওয়াক্সিং এড়িয়ে চলুন-বর্তমানে অনেকেই নাকে ওয়াক্স ব্যবহার করে লোম টেনে তুলেন। যা নাকের জন্য ক্ষ’তিকর ‘হতে পারে। নাকের লোমগু’লো আপনাকে বিভিন্ন ক্ষ’তিকারক জী’বাণু থেকে রক্ষা করে।

তবে ওয়াক্সিং করলে নাকের ভেতরের সব লোমগু’লোই উঠে আসে। এর ফলে বিভিন্ন ক্ষ’তিকর জী’বাণু নিঃশ্বা’স নেওয়ার মাধ্যমে সহজেই নাকের মধ্যে দিয়ে প্রবেশ করে।

হেয়ার রিমুভাল ক্রিম-হেয়ার রিমুভাল ক্রিমগু’লোত একত কিছু কেমিকেল থাকে, যা চুলের ক্যারেটিন প্রোটিনকে ধ্বং’স করে। এই ক্রিমগু’লো আপনার পা এবং বুকে ব্যবহার করা যেতে পারে।

তবে এটি নাকে ব্যবহার করা উচিত নয়। এ ছাড়াও এই রাসায়নিকের গন্ধ অ্যালার্জির কারণ ‘হতে পারে। নাকের ত্বক স্বাভা’বিকভাবেই সংবেদনশীল হয়ে থাকে। তাই নাকের লোম তোলার ক্ষেত্রে সঠিক উপায় অবলম্বন করুন।

কীভাবে নাকের লোম ওঠাবেন-নাকের লোম ওঠানোর সবচেয়ে নিরাপ’দ এবং সর্বাধিক ব্যবহারযোগ্য ‘বিকল্প হলো ট্রিমিং করা বা ছেঁটে ফেলা। এজন্য ছোট কাঁচি ব্যবহার করুন। তবে বেশি পরিমাণে লোম অ’পসারণ করবেন না। এতে আপনারই ক্ষ’তি হবে।