অতিরিক্ত চাহিদায় অসহ্য হয়ে কুকুরের বকলস পেঁচিয়ে স্ত্রীকে খু’ন!

কুকুরের বকলস পেঁচিয়ে স্ত্রীকে খু’ন করে থানায় যেয়ে আত্মসমর্পন করেছেন পশ্চিমবঙ্গের এক ব্যাংক কর্মকর্তা।

ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম আনন্দবাজার জানায়, রোববার(৫ সেপ্টেম্বর) রাতে পশ্চিমবঙ্গের পশ্চিম বর্ধমানের কাঁকসা থানা এলাকায় ঘটনাটি ঘটে।

আনন্দবাজার জানায়, রাতে স্ত্রীকে খু’ন করে সোমবার সকালে থানায় আত্মসমর্পণ করেন ওই ব্যাংক কর্মকর্তা বিপ্লব পারিয়াদ। তিনি পশ্চিমবঙ্গের দুর্গাপুরের মামরাবাজার এলাকার ভারতের একটি সরকারী ব্যাংকের সহকারি ম্যানেজার।

আনন্দবাজার জানায়, সোমবার(৬ সেপ্টেম্বর) সকালে বাইক চালিয়ে কাঁকসা থানায় যান বিপ্লব। পুলিশকে স্ত্রী ঈপ্সা প্রিয়দর্শিনীকে খু’নের কথা স্বীকার করে আত্মসমর্পণ করেন। পরে পু’লিশ তাঁর ফ্ল্যাটে যেয়ে মেঝেতে ঈপ্সার দেহ উদ্ধার করে।

আনন্দবাজার জানায়, ভারতের ওড়িশা রাজ্যের কটকে বিপ্লব এবং ঈপ্সার বাড়ি। ২০১৯ সালে তারা বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন। পশ্চিমবঙ্গের কাঁকসার বামুনাড়ার এলাকায় অভিজাত ফ্ল্যাটে থাকতেন স্ত্রীকে নিয়ে থাকতেন বিল্পব। লতা দেবনাথ নামে তাঁদের এক প্রতিবেশী আনন্দবাজারকে জানায়, দুই একদিন তারা স্বামী-স্ত্রী মধ্যে ঝগড়া শুনেছেন।

এদিকে ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমকে বিপ্লবের দাবি তার স্ত্রীর অতিরিক্ত চাহিদা ছিল। তিনি বলেন, ‘‘আমাকে বিদেশে ঘুরতে নিয়ে যেতে বলেছিল। আমরা মালয়েশিয়া গিয়েছিলাম। ওখানে গিয়ে আমরা দু’জনে ট্যাটু বানিয়েছিলাম। আমাকে গাড়ি চালানো শেখানোর কথা বলেছিল। আমি তার ব্যবস্থা করে দিয়েছিলাম। ফ্যাশন ডিজাইনিংয়ের কোর্স করাতে বলেছিল।’’

তিনি আরও বলেন, ‘‘হঠাৎ হঠাৎ নানা বায়না করত। আমি বুঝতে পারতাম না হঠাৎ হঠাৎ ওর মাথায় কী ভূত চাপত। আমিও সাধারণত রান্না করতাম। ও ইচ্ছা হলে করত।’’

এদিকে ঈপ্সার বাবা অভিযোগ করে বলেন, ওড়িশায় ফ্ল্যাট কেনার ৩৫ লক্ষ টাকা চেয়েছিলেন বিপ্লব। তা না পেয়েই তিনি ঈপ্সাকে খু’ন করেছেন বলে তাঁর দাবি। বিপ্লবের কঠোর শাস্তির দাবি জানিয়েছেন তিনি।

সোমবার ফ্ল্যাটে ঢুকে কুকুরের বকলসটিও উদ্ধার করেছে পু’লিশ। পুলিশকে বিপ্লব জানিয়েছেন, ওই বকলস দিয়েই তিনি তারা স্ত্রীকে ফাঁস দিয়ে খু’ন করেছেন।

এদিকে সোমবার বিপ্লবের বিরুদ্ধে কাঁকসা থানায় মা’মলা দায়ের করেছেন ঈপ্সার বাবা। মামলার তদন্ত শুরু করেছে বলে জানিয়েছে কাঁকসা থানার পুলিশ ।