মেয়েদের খেলার বিপক্ষে তলেবান, টেস্ট বাতিলের হুমকি অস্ট্রেলিয়ার

আগস্ট মাসের মাঝামাঝি আফগানিস্তানের ক্ষমতা দখলে নিয়েছে কট্টরপন্থী তালেবানরা। ফলে দেশটির খেলাধুলায় এসেছে নানা সীমাবদ্ধতা। বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে মেয়েদের খেলাগুলো। কদিন আগে তালেবানের সংস্কৃতিবিষয়ক কমিশনের উপপ্রধান আহমাদুল্লাহ ওয়াসিক বলেছিলেন মেয়েদের ক্রিকেট খেলতে দেওয়া হবে না। তার প্রতিক্রিয়ার আফগানিস্তান পুরুষ দলের বিপক্ষে আগামী বছরের অনুষ্ঠিতব্য একমাত্র টেস্টটি না খেলার হুমকি দিয়েছে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া।

প্রতিক্রিয়ার ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া বলেছে, ‘আমাদের কাছে ক্রিকেটকে বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে দেওয়ার গুরুত্ব অপরিসীম, সেটা হোক ছেলের মধ্যে কিংবা মেয়েদের মধ্যে। ক্রিকেট নিয়ে আমাদের দৃষ্টিভঙ্গি হলো এটা সবার খেলা। আমরা যে কোনো পর্যায়ের মেয়েদের ক্রিকেটের পাশে আছি।’

ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া যোগ করেছে, ‘আফগানিস্তানে মেয়েরা ক্রিকেট খেলতে পারবে না, সংবাদমাধ্যমে আসা এই খবর সত্যি হলে হোবার্টে অনুষ্ঠিতব্য আফগানিস্তানের বিপক্ষে আমাদের টেস্ট ম্যাচটি বাতিল করে দেওয়া ছাড়া আর কোনো উপায় থাকবে না।’

এর আগে তালেবানরা যখন আফগানিস্তানের ক্ষমতা দখল করছিল তখন বেশ কয়েকটি টুইটে রশিদ খান দাবি করেন, তার দেশ বিশৃঙ্খল অবস্থায় রয়েছে। বিশ্ব নেতাদের কাছে তিনি আকুতি জানান, যেন আফগানিস্তানের লোকদের আর মারা না হয়।

নিজের অফিসিয়াল টুইটার অ্যাকাউন্টে রশিদ খান বলেন, প্রিয় রাষ্ট্রনেতারা, আমার দেশ বিশৃঙ্খল অবস্থায় রয়েছে। শিশু এবং নারীসহ হাজার হাজার নির্দোষ মানুষ প্রতিদিন মারা যাচ্ছেন। ঘর-বাড়ি ধ্বংস হচ্ছে। হাজার হাজার পরিবারের ক্ষতি হচ্ছে। এমন অবস্থায় আমাদের ছেড়ে যাবেন না। আফগানদের হত্যা করা বন্ধ হোক, আফগানিস্তানকে ধ্বংস করা বন্ধ হোক। আমরা শান্তি চাই। পরে আরেক পোস্টে রশিদ আফগানদের সহযোগিতার জন্য অর্থ সাহায্য চান। ফান্ড গঠন করে তিনি সমস্যায় থাকা লোকদের দুয়ারে দুয়ারে প্রয়োজনীয় জিনিস পৌঁছে দিতে চান বলেও উল্লেখ করেন।