ভেনিসের রাস্তায় মাথায় হাত দিয়ে বসে শ্রীলেখা! কী হল তাঁর?

নেটমাধ্যমে তাঁর করা পোস্টে দেখা যাচ্ছে, ভেনিসের রাস্তায় মাথায় হাত দিয়ে বসে রয়েছেন শ্রীলেখা মিত্র। দুধ সাদা লম্বা ঝুলের একটি জামা পরে ফুটপাথের উপর বসে রয়েছেন তিনি। চোখে কালো চশমা। পাশে রাখা হলুদ রঙের ব্যাগ। কিন্তু আচমকা এই অবস্থা কেন হল তাঁর?

শ্রীলেখার পোস্টের বিবরণীতে চোখ রাখলেই সেই প্রশ্নের উত্তর পাওয়া যায়। তিনি লিখেছেন, ‘আরটিপিসিআর টেস্ট ১১২ ইউরো অর্থাৎ দশ হাজার টাকা। মাথায় হাত ভেনিস (না ফেরত) অভিনেত্রীর।’

আদিত্য বিক্রম সেনগুপ্তের ‘ওয়ান্স আপঅন আ টাইম ইন কলকাতা’ ছবিটি ভেনিস চলচ্চিত্র উৎসবে দেখানো হয়েছে। সেই ছবিতে মুখ্য ভূমিকায় অভিনয় করেছিলেন শ্রীলেখা। স্বাভাবিক ভাবেই নেমন্তন্ন রক্ষা করতে সেখানে গিয়েছিলেন তিনি। সবুজ শিফন শাড়ি, খোলা চুলে চলচ্চিত্র উৎসবের লাল গালিচায় হাঁটতে দেখা গিয়েছিল তাঁকে। কিন্তু এ বার দেশে ফেরার পালা। কিন্তু তার আগে করোনা পরীক্ষা করাতে হবে তাঁকে। বিদেশে আরটিপিসিআর টেস্টের খরচ শুনে তাই মাথায় হাত শ্রীলেখার। কলকাতায় এই পরীক্ষা করাতে তুলনামূলক ভাবে অনেকটাই কম খরচ হয়। কিন্তু ভেনিসে এই একই পরীক্ষা করাতে খরচ পড়বে ১১২ ইউরো, ভারতীয় মুদ্রায় যা প্রায় দশ হাজার টাকার কাছাকাছি। এই খরচ না বইতে পারলে হয়তো আর দেশেই ফেরা হবে না তাঁর। আর সেই কথা ভেবেই মাথায় হাত দিয়ে রাস্তায় বসে পড়েছেন শ্রীলেখা। তবে অভিনেত্রী যে এ সবটাই খানিক মজার ছলে করেছেন, তা বুঝেছেন তাঁর অনুরাগীরা। শ্রীলেখার পোস্টের মন্তব্য বাক্স দেখলেই সে কথা স্পষ্ট হয়ে যায়।