স্ত্রীর ইচ্ছাপূরণে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ নাসির

জাতীয় দলের ক্রিকেটার নাসির হোসেন কিছু দিন আগে তামিমা তাম্মিকে বিয়ে করে আলোচনায় এসেছিলেন, যদিও ক্রিকেটীয় পরিমণ্ডল থেকে কিছুটা দূরে তিনি। বিয়ের পর নাসিরের স্ত্রী বলেছিলেন তিনি যে কোনো সময় স্বামীকে জাতীয় দলের জার্সিতে দেখতে চান। বুধবার (১৫ সেপ্টেম্বর) নাসির বলেছেন স্ত্রীর সেই ইচ্ছা পূরণ না হওয়া পর্যন্ত চেষ্টা করে যাবেন তিনি।

মিরপুরের একাডেমি মাঠে অনুশীলন করতে এসে নাসির বলেন, ‘অবশ্যই আমি চেষ্টা করব স্ত্রীর ইচ্ছা পূরণ করার। যতদিন ক্রিকেট খেলব আমি চেষ্টা করব জাতীয় দলে যেন ফিরতে পারি। আমার মনে হয়, এটাই সব খেলোয়াড়ের স্বপ্ন। আমারও স্বপ্ন আবার যেন জাতীয় দলে কামব্যাক করতে পারি।’

ইচ্ছাই সব কিছু না, এই কথা হয়তো কারও অজানা নয়। তার পাশাপাশি উপযুক্ত কাজও করে যেতে হবে যে কাউকে। নাসিরও মনে করছেন সেটি। তিনি বলেন, ‘ফেরার জন্য অবশ্যই অনুশীলনের কোনো বিকল্প নেই। সবচেয়ে বড় কথা হচ্ছে ফিটনেসের ওপর বেশি কাজ করছি। যেহেতু করোনার জন্য আমরা ওভাবে অনুশীলন করতে পারছি না। আমার বিশ্বাস, আমরা এখন উইকেট পাব। অবশ্যই ব্যাটিং-বোলিং দুইটাই হবে।’

জাতীয় দলে বিগত কয়েক বছর ধরে না খেললেও নাসির খেলেছেন ঘরোয়া ক্রিকেটে। সে সব আসরে সব সময়ই সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক হতে চান তিনি। এ সম্পর্কে নাসির বলেন, ‘ঘরোয়া লিগে আমি সবসময়ই চেষ্টা করি টপ রান গেটার হব। এটাই সবসময় চেষ্টা করি। এবারও যখন (জাতীয় লিগ) শুরু হবে, এটাই আমার লক্ষ্য থাকবে যেন আমি টপ রান গেটার হতে পারি।’

উল্লেখ্য, চলতি বছরের ১৪ ফেব্রুয়ারি মডেল ও বিমানবালা তাম্মিকে বিয়ে করেন নাসির। এরপর সেই খবর জানাজানি হলে তামিমার সাবেক স্বামী আক্ষেপ প্রকাশ করেন, ক্ষোভও উগরে দেন তাম্মি ও নাসিরের ওপর। কারণ বলা হচ্ছিল, নাসির আরেক জনের বউকে নিজের স্ত্রী বানিয়েছেন। সে ব্যক্তি পরে নাসির ও তামিমার বিরুদ্ধে থানায় একটি সাধারণ ডায়েরিও করেন।

সুত্রঃ সময় টিভি