হঠাৎ অধিনায়কত্ব থেকে পদত্যাগ কোহলির

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পর অধিনায়কত্ব ছাড়বেন বিরাট কোহলি ঠিক এমনটাই শোনা যাচ্ছিল কয়েকদিন ধরে ভারতীয় সংবাদমাধ্যমে। তবে বোর্ড অব কন্ট্রোল ফর ক্রিকেট ইন ইন্ডিয়া (বিসিসিআই) সেই গুঞ্জন উড়িয়ে দিয়েছিল। সেই গুঞ্জনকে সত্যি করে টি-টোয়েন্টির অধিনায়কের দায়িত্ব ছাড়ছেন কোহলি।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে নিজেই বিশ্বকাপের পর টি-টোয়েন্টি থেকে নেতৃত্ব ছেড়ে দেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন সময়ের অন্যতম সেরা এই ক্রিকেটার।

শেষ পঞ্চাশোর্ধ্ব ইনিংসে ব্যাট হাতে সেঞ্চুরি করতে পারেননি কোহলি। ব্যাটিংয়ে আরও মনোযোগ দিতেই অধিনায়ক ছাড়ার সিদ্ধান্ত নেবেন বলে দাবি করেছিল ভারতীয় গণমাধ্যমগুলো।

তবে কোহলি জানিয়েছেন, ওয়ার্কলোড (কার্যক্ষমতা) বুঝতে পারাটা গুরুত্বপূর্ণ। শেষ ৮-৯ বছর আমি সব সংস্করণে খেলেছি, ৫-৬ বছর ধরে অধিনায়কত্বও করছি। ওয়ার্কলোড অনেক বেশি ছিল।

আমি মনে করি, ভারতের জাতীয় দলকে ওয়ানডে এবং টেস্টে নেতৃত্ব দেয়ার জন্য আমার ওয়ার্কলোড নিয়ন্ত্রণ করা জরুরি। টি-টোয়েন্টিতে অধিনায়ক হিসেবে আমি নিজের সবটুকুই দিয়েছি এবং আগামীতেও ব্যাটসম্যান হিসেবে সবকিছু দিতে থাকব।

কোহলি আরও বলেন, এই সিদ্ধান্ত নিতে আমার সময় লেগেছে। আমি আমার কাছের মানুষদের সাথে অনেক আলোচনা করেছি। লিডারশিপ গ্রুপের গুরুত্বপূর্ণ অংশ রবি ভাই (রবি শাস্ত্রী) এবং রোহিতের সঙ্গেও কথা বলেছি।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পরই আমি টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের নেতৃত্ব ছাড়ছি। সেক্রেটারি জয় শাহ, বিসিসিআইয়ের সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলি ও নির্বাচকদের সঙ্গেও আমি এই ব্যাপারে কথা বলেছি।

উল্লেখ্য, ২০১৭ সালের জানুয়ারিতে সংক্ষিপ্ত ফরম্যাটে ভারতের অধিনায়কত্ব পেয়েছিলেন কোহলি। এরপর থেকে ভারতকে ৪৫ টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচে নেতৃত্ব দিয়ে ২৭ টি জয় ও ১৪ টি হার দিয়েছেন তিনি।

সূত্রঃ ভোরের পাতা