আগের স্ত্রীকে তালাক না দিয়েই মাহিকে বিয়ে করলেন সাবেক ছাত্রলীগ নেতা!

দ্বিতীয় বিয়ে করেছেন চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহি। গেলো ১৩ সেপ্টেম্বর গাজীপুরের সরকার পরিবারের অন্যতম সদস্য রাকিব সরকারের সঙ্গে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন তিনি।

রাকিব সরকারের পুরো নাম কামরুজ্জামান সরকার রাকিব। তিনি গাজীপুরের ব্যবসায়ী এবং রাজনীতিবিদ। এক সময় ভাওয়াল বদরে আলম সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের ছাত্রলীগের সদস্য ছিলেন রাকিব। তূণমুল থেকে রাজনীতি শুরু করা রাকিব সরকারের রয়েছে অনেক সুনাম। গরিব-দুঃখী মানুষের পাশে থেকে সবসময় কাজ করে যাচ্ছেন তিনি। বর্তমানে বাংলাদেশ কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ উপ-কমিটির সদস্য রাকিব সরকার। তিনি বিভিন্ন ব্যবসায় জড়িত। সেগুলোর মধ্যে গাড়ির শো-রুম, পরিবহন, রিসোর্ট, কাঁচা মালের আড়ৎ, জমিসহ আরো অনেক কিছু।

মাহি ও রাকিব দুজনেরই এটি দ্বিতীয় বিয়ে। প্রথম স্ত্রীর সংসারে দুই সন্তানের জনক রাকিব। এরমধ্যে একটি ছেলে একটি মেয়ে। ছেলেটির নাম সোয়াইব ও মেয়েটির নাম সাইয়ারা। মাহির সঙ্গে তার সাবেক স্বামী অপুর ডিভোর্স হলেও রাকিব এখনো তার স্ত্রীকে ডিভোর্স দেননি। একটি বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলকে রাকিবের স্ত্রী বিষয়টি জানিয়ে বলেন- রাকিব তাকে না জানিয়েই বিয়ে করেছে, তিনি প্রয়োজনে মামলা করবেন। প্রিন্ট মিডিয়ার অনলাইন ভার্সনেও এমন খবর ভেসে বেড়াচ্ছে।

রাকিবের সঙ্গে মাহির বন্ধুত্ব বেশ পুরনো। দুজনের মতের মিল এবং বোঝাপড়াও ভালো। আর তাই ৯ বছরের বন্ধুত্বকে বিয়েতে রূপ দিয়েছেন তারা। এই বিয়ে নিয়ে আশাবাদী মাহি।

এ প্রসঙ্গে তিনি গণমাধ্যমে জানিয়েছেন, ‘বিচ্ছেদ হওয়ার পরে একসময় বিয়ে তো করতেই হতো। যেহেতু তাকে আমার সব দিক থেকে ভালো লেগেছে, সেই জন্য সিদ্ধান্ত নিয়েছি। সে–ও মনে করেছে, আমার সঙ্গে বিয়ে হলে সুখী হবে। সেই জায়গা থেকেই আমাদের বিয়ে।’

তাদের বিয়ের আয়োজনে শুধু দুই পরিবারের ঘনিষ্ঠজনরাই উপস্থিত ছিলেন। তবে এই বিয়েতে শুরুতে মত দেননি পরিবার। মাহি জানান, ‘পরিবারের সম্মতি ছিল না। পরে পরিবারকে রাজি করিয়েছি। আমাদের দুজনের এটা দ্বিতীয় বিয়ে। দ্বিতীয় বিয়েতে অ্যাপ্রিসিয়েশন তেমন একটা থাকে না, এটাই স্বাভাবিক।’

মাহির দ্বিতীয় বিয়ের খবরে অনেকেই তাকে অভিনন্দন জানাচ্ছেন আবার কেউ কেউ তাকে বাঁকা চোখে দেখছেন। তবে কারো কটু দৃষ্টিতে কিছু যায় আসে না নায়িকার। তার মতে- তারা ভালো আছেন, ভালো থাকতে চান।

সূত্রঃ আর টিভি নিউজ