একই মেয়েকে ভালোবাসেন চাচা-ভাতিজা, মুখোমুখি ডিপজল-জয়

তাকে বলা হয় মুভি ল’র্ড। তিনিই বাংলা চলচ্চিত্রের ডে’ঞ্জা’রম্যা’ন। তিনি প্রযোজক, তিনি খ’লনা’য়ক,

আবার তিনিই নায়ক। আর এই তিনিটা হলেন মনোয়ার হোসেন ডিপজল। ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির মানুষের সঙ্গে তার নি’বি’ড় সম্প’র্ক।

তরুণ প্রজন্মের আলোচিত নায়ক জয় চৌধুরীর সঙ্গে ডিপজলের সম্পর্কটা চাচা-ভাতিজার। ডিপজলের

হাত ধ’রে’ই সিনেমায় পথচলা শুরু জয়ের। প্রথম থেকেই ডিপজলকে চাচ্চু বলেই ডা’কেন জয়।

অন্যদিকে ডিপজলও স্নেহের বাঁধ’নে বেঁ’ধে রেখেছেন অ’ন্তর জ্বা’লা ছবির এই অভিনেতাকে।

কিন্তু অর্থবিত্ত, প্রভাব প্র’তিপ’ত্তির ল’ড়াই’য়ের সঙ্গে সঙ্গে একই নারীর প্রেমে পড়েছেন দুজনই। এসব নিয়ে তাদের মধ্যে ‘দ্ব’ন্দ্ব। সেখান থেকেই মুখোমুখি সং”ঘ’র্ষ, মা’রামা’রি। তবে বাস্তবে নয়। তাদের দুজনকে এই ল’ড়াই’য়ে দেখা যাবে ‘মানুষ কেন মানুষ’ ছবিতে। এই চাচা-ভাতিজা এবার শ’ত্রু শ’ত্রু খে’লা’য় মে’তে উঠেছেন।

গতকাল (২৩ জানুয়ারি) সাভারে এই ছবির অ্যা’ক’শন দৃশ্যে’র শু’টিং হয়। সেখানে মুখোমুখি হন চাচা-ভাতিজা অর্থাৎ ডিপজল-জয়। মনতাজুর রহমান আকবর পরিচালিত ছবির ফা’ই’ট ডিরেক্টর হিসেবে রয়েছেন মিঠু। গতকাল শু’টিং-এর ফাঁকেই কথা হয় ছবির নায়ক জয়ের সঙ্গে। তিনি বলেন, গল্পে আমার চরিত্রটি একজন ব্যবসায়ী।

আর চাচ্চুর (ডিপজল) একজন গু’ণ্ডা’র। দুজনে একই এলাকার হওয়াতে শ’ত্রু’তা প্র’ভাব বি’স্তার নিয়ে। এ নিয়ে দুজনের মধ্যে সব সময় দ্ব’ন্দ্ব লেগেই থাকে। এই ঘটনাগুলোকে কেন্দ্র করেই দুজনের মধ্যে এই ল’ড়া’ই। শুধু তাই না। দুজনেই ভালোবাসি একটি মেয়েকে। সব মিলিয়ে টা’নটা’ন উ’ত্তেজ’নার একটি ছবি হতে যাচ্ছে ‘মানুষ কেন অ’মা’নুষ’। ছবিটি দর্শকের ভালো লাগবে বলে আমি বিশ্বাস করি।

জয় আরও বলেন, আমার ও ডিপজল চাচ্চুর র’ক্তে’র সম্পর্ক নেই ঠিকই। তবে তার সহযোগিতায় আজকে আমি জয়। একজন চলচ্চিত্র অভিনেতা হিসেবে কাজ করতে পারছি। আমার মাথার ওপরে সব সময় ছা’য়া হয়ে রয়েছেন এই মানুষটি। তার মতো একজন মানুষের স্নে’হধ’ন্য হতে পেরে আমি নিজেকে ভাগ্যবান বলে মনে করি। তিনি আমাকে সন্তানের মতোই স্নেহ করেন। তিনি আমার বাবার মতন।

জয় জানালেন, গত ১৫ জানুয়ারি সাভারে ছবিটির শু’টিং’ শুরু হয়েছে। আগামী ৩০ জানুয়ারির মধ্যেই শুটিং শেষ হওয়ার কথা। আমরা টানা শুটিং করছি। কোনো বিরতি নেইনি। ছবিতে ডিপজল-জয়ের বিপরীতে রয়েছেন এ প্রজন্মের সম্ভাবনাময়ী চিত্রনায়িকা মৌ খান। ছবিটি প্রযোজনা করছে ডিপজলের প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান অমি বনি কথাচিত্র।