পুলিশের মামলায় বিরক্ত হয়ে নিজের বাইকেই আগুন

রাজধানীর বাড্ডা লিংক রোড এলাকায় রাইড শেয়ারিং অ্যাপস পাঠাওয়ের এক মোটর সাইকেল চালক ট্রাফিক পুলিশের উপর ক্ষুব্ধ হয়ে নিজের মোটরসাইকেলে আগুন দিয়েছেন। মাস খানেক আগেও অ্যাপসে না চালানোয় তাকে মামলা দেয়া হয়। পুলিশ বলছে, মামলা দিতে চাওয়ায় নিজের বাইকে আগুন দেয় ওই পাঠাও চালক।

সোমবার সকালে এই ভিডিওটি ছড়িয়ে পড়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। এতে দেখা যায় আগুনে পুড়ছে একটি মোটর সাইকেল। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সার্জেন্ট মামলা দিতে গেলে বাইকার নিজের বাইকে নিজেই আগুন ধরিয়ে দেন। ঘটনার পর সেই বাইকারকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য বাড্ডা থানায় আনা হয়। তিনি জানান, বারবার মামলা দেয়ার কারণেই ক্ষুব্ধ ছিলেন তিনি।

ট্রাফিকের বাড্ডা জোন এসি সুবির রঞ্জন দাশ জানান, ঘটনাস্থলে রাইড শেয়ারিংয়ের মোটরসাইকেলটি দাড়ালে ট্রাফিক পুলিশ সদস্য তার কাছে কাগজপত্র দেখতে চান। কিন্তু মোটরসাইকেল চালক কাগজপত্র না দেখিয়ে ক্ষুব্ধ হয়ে নিজের বাইকে নিজেই আগুন ধরিয়ে দেন। পরে জিজ্ঞাসাবাদের পর পাঠাওচালক সোহেলকে ছেড়ে দেয় পুলিশ। এ ব্যাপারে কোনো মামলা দেয়া হয়নি।

এদিকে, শওকত আলীর মোটরসাইকেলে আগুন দেওয়ার ভিডিওটি ইতিমধ্যে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। এ ঘটনা দুঃখজনক বলেছেন অনেকেই। ভাইরাল হওয়া ভিডিওর নিচে মো. মিজান নামের এক ব্যক্তি লিখেছেন, বাস্তবতার করুণ চিত্র। মুকিমুল আহসান হিমেল নামের আরেকজন লিখেছেন, কতটা অসহায় হলে মানুষ এটা করতে পারে।

সূত্রঃ ইন্ডিপেন্ডেন্ট নিউজ