আইপিএলে সুযোগ না পেয়ে ভারতীয় ক্রিকেটারের আ’ত্মহ’ত্যা

শারীরিক গঠন আর বোলিং স্টাইল ছিল অনেকটাই দক্ষিণ আফ্রিকার তারকা পেসার ডেল স্টেইনের মতো। করণ তিওয়ারিকে তাই সতীর্থরা ‘জুনিয়র স্টেইন’ নামেই ডাকতেন। স্বপ্নটাও বেশ বড় ছিল। বড় মঞ্চে নিজেকে প্রমাণ করবেন, হয়তো আর দশজন ক্রিকেটারের মতো দেশের জার্সি গায়ে দেয়ার স্বপ্নও ছিল।

কিন্তু সবাই তো একরকম হয় না। স্বপ্নের আগে আবেগকে প্রাধান্য দিয়ে বসলেন করণ। হতা’শায় এমনই ডুবে গেলেন, আ’ত্মহ’ত্যার মতো সিদ্ধান্ত নিতেও দ্বিধা করলেন না।

সোমবার রাতে বাড়ি থেকে ভারতীয় এই পেসারের ঝু’লন্ত লা’শ উদ্ধার করেছে মুম্বাই পু’লিশ। এখনও তার আ’ত্মহ’ত্যার কারণ পরিষ্কার নয়। তবে ভারতীয় গণমাধ্যমের খবর, আইপিএলের কোনো দলে সুযোগ না পেয়েই সম্ভবত আ’ত্ম’হত্যা করেছেন করণ। কেননা ঘনিষ্ঠ এক বন্ধুর কাছে কষ্টের কথা শেয়ার করেছিলেন তিনি। জানিয়েছিলেন, আ’ত্মহ’ত্যা করতে পারেন।

বন্ধু বিপদ আঁচ করতে পেরে বিষয়টি জানিয়েছিলেন করণের বোনকে। বোন তার মাকে জানান। কিন্তু ততক্ষণে বেশ দেরি হয়ে গেছে। সোমবার রাত ১০টার দিকে শোয়ার ঘরের দরজা ভেঙে পরিবারের সদস্যরা দেখেন, সিলিং ফ্যানে ঝু’লে আছে করণের মৃ’তদে’হ।

করণ গত মৌসুমে ওয়াংখেড়েতে প্রায়ই আইপিএলের দলগুলোর নেটে বোলিং করেছেন। আইপিএলে খেলার স্বপ্ন তো থাকারই কথা। কিন্তু ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের (বিসিসিআই) নিয়ম হচ্ছে, আইপিএল নিলামে উঠতে হলে রাজ্য দলের যে কোনো ক্যাটাগরিতে খেলতে হবে। সেই সুযোগটাই আর হয়ে উঠছিল না।

করণের বন্ধু অভিনেতা জিতু ভার্মা জানিয়েছেন, দীর্ঘদিন যাবৎ ক্যারিয়ার নিয়ে হতাশায় ভুগছিলেন ২৭ বছর বয়সী এই ক্রিকেটার। মুম্বাইয়ের সিনিয়র দলের কোচ বিনায়ক সামন্ত তার জন্য ভালো একটি ক্লাব খুঁজে দেয়ারও চেষ্টা করছিলেন। তবে এত এত অনিশ্চয়তা মেনে নিতে পারেননি তরুণ করণ। সম্ভবত সেই হতা’শা থেকেই প্রা’ণঘা’তী সিদ্ধান্ত।

x