আসছে আরও একটি সরকারি টিভি চ্যানেল

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট ব্যবহার করে নতুন একটি টেলিভিশন চ্যানেল চালু করতে যাচ্ছে সরকার। এই টেলিভিশন চ্যানেল হবে সম্পুর্ন কৃষিভিত্তিক। আর নাম হবে ‘কৃষি টিভি’। সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলে এ তথ্য জানা গেছে।

জানা গেছে, কৃষি টিভির ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে থাকবে কৃষি তথ্য সার্ভিস। সব প্রোগ্রাম তৈরি করবে তারা, তবে সম্প্রচারের কারিগরি দিকটি দেখবে বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইটের নিয়ন্ত্রণকারী সংস্থা বাংলাদেশ কমিউনিকেশন স্যাটেলাইট কোম্পানি লিমিটেড (বিসিএসসিএল)। এই চ্যানেলে ২৪ ঘণ্টাই কৃষি বিষয়ক অনুষ্ঠান সম্প্রচারিত হবে।

আগামী অর্থবছর থেকে চ্যানেলটি চালুর চিন্তা-ভাবনা চলছে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা। তারা বলছেন, দ্রুত সময়ের মধ্যে সম্প্রচারে যেতে পারবেন। তবে এর আগে কৃষি বিভাগের তরফ থেকে প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে হবে।
কর্মকর্তারা আরও বলছেন, কৃষি ঐতিহ্যকে ধারণ করে এই চ্যানেলের মাধ্যমে কৃষি তথ্য তুলে ধরা হবে। এছাড়া কারিগরি পরামর্শসহ কৃষককে নানাভাবে সহায়তা দেয়ার চেষ্টা করা হবে চ্যানেলটির মাধ্যমে। এই টেলিভিশন চ্যানেলে কৃষকের জন্য বিনোদনমূলক অনুষ্ঠানও থাকবে।

উল্লেখ্য, কৃষি বাংলাদেশের অর্থনীতিতে সর্বাধিক গুরুত্বপূর্ণ একটি সেক্টর। দেশের মোট জনসংখ্যার শতকার ৮০ ভাগ এবং শ্রমশক্তি ৬০ ভাগ কৃষিতে নিয়োজিত। গ্রামের উন্নয়নের কথা বলতে গেলে প্রথমে আসে কৃষি উন্নয়ন- কৃষি ভিত্তিক শিল্প, বাণিজ্য ও সেবা খাতের উন্নয়ন।

অভ্যন্তরীণ সম্ভাবনাময় বাজারের পাশাপাশি দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোতেও বাংলাদেশের প্রবেশের বিশাল সুযোগ ও সম্ভাবনা রয়েছে। সে হিসেবে কৃষিজাত পণ্যের রপ্তানি বাজারে প্রবেশের বড় সম্ভাবনাও আছে। কৃষি এখনো দেশের বৃহত্তর গ্রামীণ জনগোষ্ঠির প্রধান পেশা এবং অধিকাংশ জনগণই জীবন জীবিকা ও কর্মসংস্থান এর জন্য কৃষির উপর নির্ভরশীল, কাজেই কৃষিভিক্তিক শিল্পে স্বল্পমাত্রার সঞ্চালনা ও প্রেষণাই আমাদের গ্রামীণ কৃষি অর্থনীতিতে ব্যাপক বিস্ফোরণ সৃষ্টি করতে এবং গ্রামীণ জনগণের জীবন মান উন্নয়নে ভূমিকা রাখতে পারে।

মিলেনিয়াম ডেভেলপমেন্ট গোল অর্জন তথা দারিদ্র্য বিমোচনের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় কৃষিশিল্পের উন্নয়ন এবং এ সেক্টরকে বাণিজ্যিকভাবে লাভজনক করার জন্য কৃষি সেক্টরের উন্নয়ন স্বাভাবিকভাবেই অগ্রাধিকার অর্জন করেছে। একটি কৃষিভিক্তিক দেশ হিসেবে বাংলাদেশে বিভিন্ন ধরনের ফসল এবং ফল-মূল উৎপাদিত হয়।

অধিকন্তু পোল্ট্রি, ডেইরী, মৎস্য ইত্যাদি উপ-খাত হিসেবে সাম্প্রতিক কালে উদীয়মান এ সকল কৃষিজাত পণ্য প্রক্রিয়াজাতকরণ এবং মূল্য সংযোজনের মাধ্যমে রপ্তানিরও অনেক সুযোগ ও সম্ভাবনা রয়েছে। কৃষি ভিত্তিক শিল্পের মধ্যে রয়েছে পোল্ট্রি ফার্ম, ডেইরী ফার্ম, খাদ্য প্রক্রিয়াজাতকরণ শিল্প, মৎস্য হিমায়িতকরণ ও প্রক্রিয়াজাতকরণ শিল্প।

দেশের ব্যবসায়ী উদ্যোক্তা এবং বিদেশী বিনিয়োগকারীগণ বাংলাদেশে কৃষি প্রক্রিয়াজাত শিল্পে বিনিয়োগে আগ্রহী। জয়েন্ট ভেঞ্চার প্রকল্প এবং সরাসরি বৈদেশিক বিনিয়োগকারীদেরকে বিশেষভাবে উৎসাহিত করা হচ্ছে।