‘আম্মু-আব্বু; আমাকে মা’ফ করে দিয়ো লিখে আ’ত্ম’হ’ত্যা করলেন বিশ্ব’বি’দ্যাল’য়ের ছাত্র

আ’মা’র প’রিচিত মানু’ষগুলো’কে আমা’র মৃ’ত্যু’র খ’ব’রটা জা’নি’য়ে দিয়ো- এই চিরকুট লি’খে আ’ত্ম’হ’ত্যা করেছেন খুলনা বিশ্ব’বি’দ্যাল’য়ের প’রি’সংখ্যা’ন ডি’সিপ্লি’নের স্নাত’কো’ত্ত’রের শি’ক্ষার্থী আব্দু’র রহিম (২৫)। প্রে’মঘটিত স’ম্প’র্কের অব’ন’তির কারণে তিনি আ’ত্ম’হ’ত্যা করে’ছেন বলে ধার’ণা করা হচ্ছে।

মানি’ক’গঞ্জ সদর থা’নার ওসি আকবর আলী খান জা’নান, বুধ’বার বি’কে’লে মানি’কগ’ঞ্জ জে’লা শহরের দক্ষিণ সেওতা এ’লা’কায় নিজ বাড়ির একটি কক্ষে সি’লিং ফ্যা’নের হু’কের সঙ্গে নাই’লনের রশির মা’ধ্যমে ফাঁ’সি’তে ঝুলে আ’ত্ম’হ’ত্যা করেন আ’ব্দু’র রহিম। করো’নার কারণে বিশ্ব’বিদ্যা’লয় বন্ধ থাকায় তিনি মানি’ক’গঞ্জে এসে পরি’বা’রের সঙ্গে’ই বসবাস কর’ছিলেন।

আ’ত্ম’হ’ত্যা’র আগে তিনি একটি চির’কু’ট লিখে গেছেন। সেই লে’খাটি আ’ব্দুর র’হিমে’র নি’জ হা’তের লেখা বলে নি’শ্চি’ত করে’ছেন তাঁর সহ’পা’ঠী এবং পরি’বারের স’দস্যরা। চিরকুটে লেখা রয়ে’ছে, ‘আম্মু-আব্বু, আ’মি স’ত্যি পা’রলা’ম না তো’মাদে’র স্বপ্ন সত্যি করতে।

আমা’কে মা’ফ করে দিয়ো। এই দুনিয়াটা আমা’র আর ভা’লো লা’গছে না, তাই চলে যাচ্ছি। আমা’র পরিচি’ত মা’নুষগু’লো’কে আমা’র মৃ’ত্যু’র খ’বরটা জা’নি’য়ে দিয়ো। সবা’ইকে বলো, আ’মাকে যেন মা’ফ করে দেয়। আ’মি সত্যি এই দুনিয়ার যোগ্য না। লা-ইলাহা ই’ল্লাল্লা’হু মু’হাম্মা’দুর রাসুলুল্লাহ (সা.)’।

একটি বিশ্ব’স্ত সূত্রে’র দাবি, একই বিশ্ব’বিদ্যা’লয়ের চা’রু’কলা স্কুলের ১৬ ব্যা’চের এক শি’ক্ষার্থী’র সঙ্গে তাঁর স’ম্প’র্ক ছিল। বেশ কি’ছু’দিন ধরে ওই স’ম্প’র্কের অ’বন’তি’ ঘটে’ছিল।

তাঁর সহপা’ঠীরা জানান, সদা হা’স্যো’জ্জ্বল, প্রা’ণবন্ত এবং ক্রী’ড়াপ্রে’মী শিক্ষা’র্থী ছিলেন আব’দুর রহি’ম। তাঁর মা’স্টা’র্স কো’র্সের শুধু ডি’ফেন্স বাকি ছিল। খুলনা বিশ্ব’বি’দ্যালয়ের উ’পা’র্য প্রফেসর ড. মো’হাম্ম’দ ফা’য়েক উজ্জা’মান মে’ধাবী ছাত্রে”র এই অ’কা’লমৃ’ত্যু’তে গভী’র শো’ক প্রকা’শ করে’ছেন।

x