আইপিএল খেলার অনুমতি পেলেন না মোস্তাফিজ

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল) ক্রিকেটের ১৩তম আসর শুরুর সপ্তাহ দুয়েক আগে হঠাৎ করেই পাওয়া গেলো খবরটি। দলে চোটজনিত সমস্যা থাকায় বাংলাদেশ দলের বাঁহাতি পেসার মোস্তাফিজুর রহমানকে নিতে চায় আইপিএলের অন্তত দুইটি দল। একটি কলকাতা নাইট রাইডার্স ও অন্যটি মোস্তাফিজের প্রাক্তন ক্লাব মুম্বাই ইন্ডিয়ানস।

কিন্তু খুশি হওয়ার সুযোগ নেই মোস্তাফিজ ভক্তদের। কেননা বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের কমিটমেন্ট থাকায় এবারের আইপিএল খেলার অনুমতি নেই মোস্তাফিজের। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) পক্ষ থেকে তাকে দেয়া হয়নি অনাপত্তিপত্র (নো অবজেকশন সার্টিফিকেট- এনওসি)।
আইপিএল শুরুর ঠিক আগে দিয়ে মুম্বাই ইন্ডিয়ানস হারিয়েছে অভিজ্ঞ পেসার লাসিথ মালিঙ্গাকে, কলকাতা থেকে ছিটকে গেছেন ইংলিশ পেসার হ্যারি গার্নে। তবে মালিঙ্গার বদলে অস্ট্রেলিয়ান পেসার জেমস প্যাটিনসনকে নিয়েছে মুম্বাই। কিন্তু এখনও গার্নের বিকল্প খুঁজছে কলকাতা।

এ জায়গাটিতেই আলোচিত হচ্ছিল মোস্তাফিজের নাম। কিন্তু চলতি মাসের শেষদিকে শ্রীলঙ্কা সফর থাকায় আইপিএল খেলার অনাপত্তিপত্র পাননি মোস্তাফিজ। ক্রিকেটভিত্তিক ওয়েবসাইট ক্রিকবাজকে বিসিবির ক্রিকেট অপারেশনস কমিটির চেয়ারম্যান আকরাম খান বলেছেন, ‘হ্যাঁ! আইপিএল থেকে প্রস্তাব এসেছিল মোস্তাফিজের জন্য। কিন্তু আমরা তাকে অনাপত্তিপত্র দেইনি কারণ সামনে শ্রীলঙ্কা সফর আসছে।’

আইপিএলে এখনও পর্যন্ত মোস্তাফিজের পারফরম্যান্স খুব একটা ফেলনা নয়। বিশেষ করে ২০১৬ সালে নিজের প্রথম মৌসুমে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের হয়ে ১৬ ম্যাচে নিয়েছিলেন ১৭ উইকেট, জিতেছিলেন শিরোপা। সেবার আইপিএলের ইতিহাসে প্রথম এবং এখনও পর্যন্ত একমাত্র বিদেশি খেলোয়াড় হিসেবে উদীয়মান ক্রিকেটারের পুরষ্কারও জিতেছিলেন মোস্তাফিজ।

কিন্তু শেষ দুই মৌসুম খুব একটা ভালো যায়নি তার। দল বদলে মুম্বাই ইন্ডিয়ানসের হয়ে ২০১৭ সালে এক ম্যাচ খেলে ছিলেন উইকেটশূন্য, পরের বছর সাত ম্যাচে নিয়েছিলেন সমান ৭ উইকেট। গতবছর ভারত সফরের টি-টোয়েন্টি সিরিজেও ছিলেন সাদামাটা। তিন ম্যাচে ৯.৫১ ইকোনমিতে শিকার ছিল মাত্র ১ উইকেট।

x