মসজিদে ভ’য়া’ব’হ ‘বি’স্ফো’র’ণে’ও ‘অ’ক্ষ’ত পবিত্র কোরআন!

নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লার পশ্চিম তল্লা বাইতুস সালাত জামে মসজিদে এসি ‘বি’স্ফো’র’ণে’র ‘ঘ’ট’না’য় শেখ হাসিনা বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শিশু-মুয়াজ্জিনসহ ১২ জন ‘মা’রা’ গেছেন। এছাড়া চিকিৎসাধীন ২৫ জনের অবস্থাও সংকটাপন্ন। শনিবার (৫ সেপ্টেম্বর) ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের পুলিশ ‘ফাঁ’ড়ি’র ইনচার্জ পুলিশের পরিদর্শক বাচ্চু মিয়া এ তথ্য জানান।

এদিকে মসজিদে ‘বি’স্ফো’র’ণে’র ‘ঘ’ট’না’য় মসজিদের ভেতরের সবকিছু পুড়ে ও ভেঙে চুরমার হয়ে গেলেও অক্ষত রয়েছে সেখানে সেলফে থাকা কোরআন শরীফ ও অন্যান্য কিতাবগুলো।

স্থানীয় পিয়াস মিয়া বলেন, মসজিদের ভিতরে থাকা ৬টি এসির ফিল্টার ও বিদ্যুতের সংযোগ তার, নামাজ পড়ার জায়নামাজ, তসবিহ, প্লাস্টিকের চেয়ার ‘পু’ড়ে গেছে। কিন্তু কোরআন শরীফ ও হাদিসের বইগুলোর কিছুই হয়নি।
তল্লা এলাকার কাপড় ব্যবসায়ী আবদুল মান্নান বলেন, চেয়ারগুলো ‘পু’ড়ে’ গেছে। দেখলাম ‘পো’ড়া’ সেই চেয়ারগুলোতে মুসল্লিদের ‘পু’ড়ে’ যাওয়া ‘চা’ম’ড়া লেগে আছে। রক্ত জমাট হয়ে মসজিদের ভিতরে ও বাহিরে ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে।

উল্লেখ্য, শুক্রবার রাত পৌনে ৯টার দিকে নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লার পশ্চিমতল্লা এলাকার বাইতুস সালাত জামে মসজিদে এসি ‘বি’স্ফো’র’ণে’র ‘ঘ’ট’না ঘটে।

মুহূর্তের মধ্যে মসজিদের ভেতরে থাকা প্রায় ৫০ জনের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। হুড়োহুড়ি করে বের হওয়ার চেষ্টা করেন তারা। তাদের মধ্যে দগ্ধ অবস্থায় ৩৭ জনকে শেখ হাসিনা বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে ভর্তি করা হয়।

x