অপেক্ষায় থাকতে হবে সাকিবকে

সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে নিষেধাজ্ঞায় থাকা ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান আগামী ২৯ অক্টোবর থেকে ক্রিকেটে ফিরতে পারবেন। দ্রুত মাঠে ফেরার লক্ষ্যে শুরু হয়েছে সাকিবের মিশন। নিজ উদ্যোগে বিকেএসপিতে ট্রেনিংয়ের ব্যবস্থা করেছেন।

নির্বাসনের আগে সাকিব ছিলেন দলের ধ্রুবতারা, টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি দলের অধিনায়ক। ফেরার পর সাকিব নিজের জায়গায় থাকবেন ঠিকই। পাবেন সেরার মর্যাদাও। কিন্তু মাথায় থাকবে না অধিনায়কের মুকুট। 
অক্টোবর-নভেম্বরে শ্রীলঙ্কা সফর করবে বাংলাদেশ। সেখানে অধিনায়কত্ব করবেন মুমিনুল হক। সাকিব নিষিদ্ধ হওয়ার পর মুমিনুলের কাঁধে টেস্ট দলের দায়িত্ব দেয় বিসিবি। শ্রীলঙ্কা সফরেও তার ওপর আস্থা রাখছে দল। বিসিবির পরিচালক ও ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের চেয়ারম্যান আকরাম খান জানালেন, অধিনায়কত্ব পরিবর্তনের কোনো ভাবনা নেই বোর্ডে। সাকিব ফিরলেও মুমিনুলকেই চায় বোর্ড। 

আকরাম খান বলেন, ‘এখন অধিনায়কত্ব বদলানোর ভাবনা নেই। মুমিনুল আছে, ও-ই থাকবে। নেতৃত্বে পরিবর্তনের কোনও পরিকল্পনা বোর্ডের আপাতত নেই। সাকিব নিষেধাজ্ঞার আগে অধিনায়ক ছিল। ফিরেই যে অধিনায়কত্ব পাবে এমনটা নয়। তাকেও অপেক্ষায় থাকতে হবে।’

প্রায় পাঁচ মাস পর গত বুধবার যুক্তরাষ্ট্র থেকে দেশে ফেরেন সাকিব। দুই মাস পর উঠে যাচ্ছে তার নিষেধাজ্ঞা। যুক্তরাষ্ট্র থেকে উড়াল দেওয়ার আগে দুই দফা করোনা টেস্ট করিয়েছিলেন তিনি। করোনা নেগেটিভ ফল নিয়ে আসেন প্রিয় জন্মভূমিতে। শনিবার বিকেএসপিতে যোগ দেন। হাল্কা রানিংয়ে শুরু করেছেন ট্রেনিং। রোববারও চলেছে তার ট্রেনিং।

প্রস্তুতির জন্য নিজের বিদ্যাপিঠকেই বেছে নিয়েছেন সাকিব। সেখানে আবাসিক ক্যাম্পে থাকবেন। সাকিবকে পুনরায় তৈরি করার অপেক্ষায় আছেন তার শৈশব গুরু নাজমুল আবেদীন ফাহিম ও মোহাম্মদ সালাউদ্দিন। বিকেএসপিতে সাকিব সবধরণের সহায়তা পাবেন। প্রতিষ্ঠানটির সবচেয়ে উজ্জ্বল ছাত্রের জন্য প্রস্তুত বিকেএসপিও। জিম, পুল, ইনডোর, সেন্ট্রাল উইকেট, অ্যাথলেটিক টার্ফ ব্যবহার করতে পারবেন সাকিব।

বিকেএসপিতে সাকিব সকল সুযোগ সুবিধা পেলেও তাকে নিয়ে সতর্ক বিসিবি। আকরাম খান জানালেন, আকসুর গাইডলাইন অনুসরণ করে সাকিবকে নিয়ে কাজ করবে বিসিবি। তিনি বলেন, ‘আমাদের গাইডলাইন হবে (সাকিবের ব্যাপারে) ২৯ অক্টোবরের পরে,  তার আগে না। আপনারাও জানেন আইসিসি থেকে নিষেধাজ্ঞা আছে এবং আমি আপনাদের অনুরোধ করবো যেহেতু এখনো পর্যন্ত ওর সবকিছু ভালো আছে,  শেষের দিকে যেন কোন কিছু তার বিরুদ্ধে না যায় আকসুর নিয়মানুসারে। আনুষ্ঠানিকভাবে আমরা তার সঙ্গে কাজ করবো ২৯ তারিখ থেকে। তার আগে আমাদের কোচ যদি তাকে সাহায্য করতে চায় সে কিন্তু ব্যক্তিগতভাবে গিয়ে করতে পারবে।’

শ্রীলঙ্কায় দ্বিতীয় ও শেষ টেস্ট খেলার সুযোগ আছে সাকিবের। এ ক্রিকেটারকে শেষ দুই টেস্টে দলে পাওয়ার প্রত‌্যাশায় বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। কিছুদিন আগে নাজমুল হাসান বলেন, ‘যখনই তার নিষেধাজ্ঞা উঠে যাবে তারপর-ই সে আমাদের সাথে খেলতে পারবে। আমরা সবাই অধীরে আগ্রহে বসে আছি কবে সে ফিরবে।’

x