অবশেষে ইন্টারনেট ব্যাংকিংয়ে লেনদেনের সীমা বাড়ল

ইন্টারনেট ব্যাংকিংয়ে লেনদেনের সীমা বাড়িয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। আগামী ১০ সেপ্টেম্বর থেকে একজন গ্রাহক প্রতিদিন পাঁচ লাখ টাকা পর্যন্ত লেনদেন করতে পারবেন। একবার লেনদেন করতে পারবেন সর্বোচ্চ এক লাখ টাকা। দৈনিক মোট ১০টি লেনদেন করা যাবে। এতোদিন একজন গ্রাহক দৈনিক সর্বোচ্চ পাঁচটি লেনদেন করতে পারতেন। প্রতিবারে সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা করে মোট দুই লাখ টাকা পর্যন্ত লেনদেন করা যেত।

প্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রে ১০ সেপ্টেম্বর থেকে প্রতিদিন দশ লাখ টাকা পর্যন্ত লেনদেন করা যাবে। প্রতিবার লেনদেন করা যাবে সর্বোচ্চ দুই লাখ টাকা। দৈনিক মোট ২০টি লেনদেন করা যাবে। এতোদিন প্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রে দৈনিক সর্বোচ্চ পাঁচ লাখ টাকা পর্যন্ত লেনদেন করা যেত। প্রতিবার এক লাখ টাকা করে মোট ১০টি লেনদেন করা যেত।

রোববার (৬ সেপ্টেম্বর) বাংলাদেশ ব্যাংক এ সংক্রান্ত একটি সার্কুলারে সব ব্যাংকের প্রধান নির্বাহীদের কাছে পাঠিয়েছে। ‘এনপিএসবি এর মাধ্যমে ইন্টারনেট ব্যাংকিং ফান্ড ট্রান্সফার (আইবিএফটি) লেনদেনের ঊর্ধ্বসীমা পুনঃনির্ধারণ’ শীর্ষ সার্কুলারে বলা হয়, সম্প্রতি ন্যাশনাল পেমেন্ট সুইচ বাংলাদেশের (এনপিএসবি) আওতাধীন ব্যাংকগুলোর তথ্য-প্রযুক্তিনির্ভর আন্তঃব্যাংক সেবা ক্রমান্বয়ে জনপ্রিয় হয়ে ওঠায় এবং লেনদেন ক্রমাগত বৃদ্ধি পাওয়ার পরিপেক্ষিতে এনপিএসবির মাধ্যমে ইন্টারনেট ব্যাংকিং ফান্ড ট্রান্সফারের (আইবিএফটি) লেনদেনের এই সীমা বাড়ানো হয়েছে।

২০১৭ সালের ২ নভেম্বর বাংলাদেশে ইন্টারনেট ব্যাংকিং সেবা চালু হয়। এ সেবার মাধ্যমে গ্রাহক ঘরে বসে যে কোনো সময় এক অ্যাকাউন্ট থেকে অন্য অ্যাকাউন্টে অর্থ লেনদেন করতে পারছেন। এতে ক্যাশলেস বা টাকাবিহীন লেনদেন বাড়ছে।

এই সেবার মাধ্যমে গ্রাহকরা এক অ্যাকাউন্ট থেকে অন্য যেকোনো অ্যাকাউন্টে, অ্যাকাউন্ট থেকে ডেবিট বা ক্রেডিট কার্ডে অথবা ডেবিট বা ক্রেডিট কার্ড থেকে অন্য অ্যাকাউন্টে অর্থ লেনদেন করতে পারেন। এছাড়াও অল্প সময়ে দ্রুত ক্রেডিট কার্ডের বিল পরিশোধ, ডিপিএস ও ঋণের কিস্তি জমা, বীমার প্রিমিয়াম দেওয়া ও ব্যবসায়িক লেনদেন করা যায়।

x