বাদ গেলেন না মা লক্ষ্মী! মায়ের পুজোয় পুরোহিতদেরই নকল টাকা গছিয়ে চম্পট ভক্ত

ঘরে আসুক মা লক্ষ্মী ৷ সিন্দুক উপছে পড়ুক ধনসম্পদে ৷ গৃহে থাকুক শান্তি ৷ তার জন্য একটানা ১৪ দিন ধরে চলল বিরাট পুজো ৷ এই বিশেষ পুজোর আয়োজনে ছিলেন ৫১ জন পণ্ডিত ৷ ধনলক্ষ্মীর এই কঠোর আবাহন শেষে যে এমন ভাবে প্রতারিত হতে হবে তা বোধহয় স্বপ্নেও ভাবেননি ৫১ জন পণ্ডিত ৷ ছাড় পেলেন না মা লক্ষ্মীও, পুজো শেষে লক্ষ্মীর বদলে হাতে এল নকল টাকা ৷

এমনই আশ্চর্যজনক প্রতারণার ঘটনা ঘটেছে উত্তরপ্রদেশের বস্তির সীতাপুরে ৷ অভিযোগ, ধনসম্পদ ও সুখশান্তির জন্য বিশেষ পুজো ও আবাহন করতে সীতাপুরের এক আশ্রমে ডাকা হয়েছিল অযোধ্যা থেকে বিখ্যাত পন্ডিত অজয় কুমার ত্রিপাঠী সহ ৫১ জন পুরোহিতের দলকে ৷ ১৪ দিনের কঠিন পুজো শেষে তাদের হাতে ৮.৫ লাখ টাকা দক্ষিণা তুলে দেন আশ্রমের সঞ্চালিকা গীতা পাঠক ৷

পরে পুরোহিতরা নিজেদের মধ্যে দক্ষিণা ভাগ করতে গিয়ে আবিষ্কার করেন বিশাল বড় প্রতারণার ফাঁদে পড়েছেন তাঁরা ৷ দক্ষিণাস্বরূপ দেওয়া ৮.৫ লাখ টাকার মধ্যে সাড়ে পাঁচ লাখ টাকা নকল ৷ তৎক্ষণাৎ পুলিশে অভিযোগ দায়ের করা হয় ৷ পুলিশ আশ্রম মালিক ও সঞ্চালিকা ওই মহিলার খোঁজে গেলে সেখানে কাউকেই পাওয়া যায়নি ৷ পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ১০০, ২০০, ৫০০ এবং ২০০০-এর জাল নোটে পুরোহিতদের দক্ষিণা দেওয়া হয় ৷ পলাতক মহিলার সঙ্গে সঙ্গে জাল নোটের উৎস জানতে তদন্তে নেমেছে পুলিশ ৷

x