মন্ত্রীর চুল কেটে নাপিত পেলেন ৭০ হাজার টাকা!

মহামারি করোনাভাইরাস পৃথিবীতে আঘাত হানার পর লাখ লাখ মানুষ কাজ হারিয়ে বেকার হয়ে গেছেন। এমনকি ব্যবসা করার মতো পুঁজিও নেই অনেকের কাছে। এ অবস্থায় আর্থিক সংকট কাটাতে ভারতের মধ্যপ্রদেশের খাণ্ডাওয়ার বাসিন্দা রোহিদাস সেলুন খুলতে চেয়েছিলেন। তাই অর্থ সাহায্য চেয়ে রাজ্যের বনমন্ত্রী বিজয় শাহর কাছে আবেদন করেন তিনি।

মন্ত্রী তাকে সাহায্য করার আগে তাকে একটি শর্ত দেন। সেটি হচ্ছে রোহিদাসকে তার সামর্থ্যের পরীক্ষা দিতে হবে। আর সে পরীক্ষায় পাস করার পরই রোহিদাসকে ৬০ হাজার রুপি (বাংলাদেশি মুদ্রায় ৭০ হাজার টাকা) দেন বনমন্ত্রী।করোনা মহামারির সময় অনেকেই আতঙ্কে সেলুনে যাচ্ছেন না। মানুষের আশঙ্কা– সেলুনে গেলে তারা সংক্রমিত হতে পারেন। সে ধারণা ভাঙতেই রোহিদাসকে একটি অনুষ্ঠানে ডাকেন বিজয় শাহ। ওই অনুষ্ঠানেই বনমন্ত্রী নরসুন্দর রোহিদাসকে দিয়ে চুল ও দাড়ি কাটান।

স্বাস্থ্যবিধি মেনে এবং মুখে মাস্ক পরে রোহিদাস মন্ত্রীর নির্দেশমতো কাজ করেন। তার কাজে খুশি হয়ে সঙ্গে সঙ্গে ৬০ হাজার রুপি বের করে দেন মন্ত্রী বিজয় শাহ।

মন্ত্রী জানান, কয়েক মাস ধরে করোনা পরিস্থিতির জন্য অনেকে কাজ হারিয়ে বেকার হয়ে পড়েছেন। মানুষের মধ্যে আস্থা ফেরাতেই তিনি সবার সামনে রোহিদাসকে দিয়ে চুল ও দাড়ি কাটান।

x