৮ কোটি টাকার প্রস্তাব পেয়েও দেশের সাথে বেঈমানি করেনি : মাশরাফি

বিশ্বকাপে অনুজ্জ্বল, সে থেকে গুঞ্জন আর আলোচনা একমাত্র ওয়ানডে ক্রিকেট খেলা চালিয়ে যাওয়া মাশরাফি নামক সূর্যটি কি অস্তমিত হচ্ছে খুব শীগ্রই? তখন থেকেই শুরু হয়েছিল দিনক্ষণ। আলোচনা উঠেছিল হয়ত বিশ্বকাপের শেষ ম্যাচেই ঘোষণা দিবেন মাশরাফি। ক্যাপ্টেন না কি সিদ্ধান্তও নিয়েছিলেন। তবে কিছু বিষয় ভেবে নেননি অবসর।

বিশ্বকাপ শেষে শ্রীলঙ্কা সফর, বিদেশের মাটিতে সিরিজ হলেও আলোচনা সেই মাশরাফির অবসর। এরপর ঘরের মাঠে জিম্বাবুয়ে সিরিজে সবাইতো ভেবেই নিয়েছিলেন অবসর নিবেন ম্যাশ। কিন্তু না, মাশরাফি খেলা ছাড়েননি ছেড়েছেন অধিনায়কত্ব।

বার বার অবসরের আলোচনায় আসলেও অবসর নিয়ে ক্রিকেট থেকে চাপ প্রয়োগ করেছে এমন কখনো বলেননি মাশরাফি। বরং সব সময় বোর্ডের প্রসংশা করেছেন তিনি। তবে সম্প্রতি ক্রিকেট ভিত্তিক ওয়েবসাইট ‘ক্রিকবাজকে’ সে সময়ের কিছু গল্প শুনিয়েছেন মাশরাফি।

মাশরাফি বলেন, ‘পাপন ভাই (বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন) আমার সাথে এটি (অবসর) নিয়ে কথা বলেছে। তিনি আমাকে আরও বলেছেন শুধু আমার সাথেই কথা বলবেন এই ইস্যুতে অন্য কারও সাথে নয়।’

‘সে বারবার আমাকে ফোন করে সিদ্ধান্ত নিতে বলেন। আমি তাকে বলেছি বিপিএল পর্যন্ত খেলতে চাই। এরপর তিনি গণমাধ্যমে গিয়ে বলেছেন। আমার স্পষ্ট মনে আছে তিনি সবাইকে রুম ছেড়ে যেতে বলেছেন কারণ আমার সাথে একান্তে কথা বলতে চেয়েছেন। এ ক্ষেত্রে তিনি আমাকে বেশ সম্মান দিয়েছেন।’

পাপনের এমন বার বার ফোনেও কখনো কষ্ট পাননি মাশরাফি। তবে মাশরাফির কষ্টের জায়গাটা আসলে কোথায়? ‘সমস্যাটা হল যারা সেখানে ছিল তারা গুজব ছড়িয়েছে। আমার ও পাপন ভাইয়ের মধ্যে কি আলোচনা হয়েছে তা তারা কেউই জানতনা। তারা আমার বেতন নিয়ে কথা বলেছে, জিজ্ঞাসা করে কেন বোর্ড কোন বিনিময় ছাড়া কাউকে কিছু দিয়ে দিবে? আমি কি ১৮ বছর ধরে টাকার জন্য ক্রিকেট খেলেছি? যদি টাকার কথা চিন্তা করতাম আমার অনেক সুযোগ ছিল।’

টাকার জন্য ক্রিকেট খেলেন না উল্লেখ করে মাশরাফি আরও বলেন, ‘আমি টাকার জন্য ক্রিকেট খেলিনি। সবচেয়ে খারাপ ব্যাপার হল তারা এমনভাবে গুজব ছড়িয়েছে যেন বিশ্বকাপে বাংলাদেশ সাড়ে ৯ জন নিয়ে খেলেছে। আপনি কি মনে করেন আমি এটার প্রাপ্য? হতে পারে বোর্ড আমাকে আরও ভালো বিদায় দিতে চেয়েছে। তবে আপনাকে আমার দিকটাও দেখতে হবে। আমার শ্রীলঙ্কা যাওয়া নিয়েও কথা হয়েছে, চোটে না পড়লে আমি শ্রীলঙ্কা সফরেও যেতাম।’

‘আমি শুধু জানি আমি আমার জীবনটা ক্রিকেটের জন্যই সঁপে দিয়েছি এমনকি নানা কষ্টে হৃদয়ে রক্তক্ষরণ হয়েছে বারবার তবুও ক্রিকেটই আমার সব। টাকাই যদি মাণদন্ড হত চোটে পড়ে ক্যারিয়ার শঙ্কায় পড়েছে অনেকবার তখনই কিন্তু ভিন্ন কিছু করতে পারতাম। ৮ কোটি টাকার প্রস্তাব পেয়েও আইসিএল খেলতে যাইনি। আমি আমার জীবন দিয়ে ক্রিকেট খেলেছি। হয়তো বড় কোন খেলোয়াড় হতে পারিনি কিন্তু নূন্যতম সম্মান আশা করতে পারি।’

x