রাজনীতির কী দরকার আছে ; আমি কখনোই আসবোনা : তামিম

ভবিষ্যতে রাজনীতিতে আসার একটুও আগ্রহ নেই বলে জানিয়ে দিয়েছেন বাংলাদেশের ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম ইকবাল। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ‘ফ্যান গ্রুপে’ খেলোয়াড়দের নিয়ে কাদা ছোঁড়াছুড়িকে আপত্তিকর বলেও উল্লেখ করেন তিনি৷

ডয়চে ভেলের ইউটিউব টক শো ‘খালেদ মুহিউদ্দীন জানতে চায়’-এ যোগ দিয়ে বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দিয়েছেন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের তারকা ক্রিকেটার।

মাশরাফি বিন মর্তুজা অবসর নেয়ার পর গত মার্চে উত্তরসূরি হিসেবে তামিম ইকবালকে ওয়ানডে অধিনায়ক নির্বাচিত করে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।

তারপর থেকে আর মাঠে নামার সুযোগ হয়নি বাংলাদেশের। অধিনায়ক হলেও জীবনযাত্রা বা সতীর্থদের সঙ্গে সম্পর্কে কোনো পরিবর্তন আসেনি বলে জানান তামিম। তিনি বলেন, অধিনায়ক হবেন এমন ইচ্ছা তার কখনোই ছিল না।

তবে নতুন দায়িত্বে নিজের সেরাটাই দেয়ার চেষ্টা করবেন বলে জানান ২২ গজে বাংলাদেশের নির্ভরযোগ্য ওপেনার।

শ্রীলঙ্কায় বাংলাদেশের সফর বাতিল হয়ে যাওয়ায় তামিমের নতুন ইনিংস শুরুর অপেক্ষা আরো দীর্ঘায়িত হয়েছে। তবে এক্ষেত্রে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড সঠিক সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলেই মনে করেন তিনি।

আগামী বছর দেশের মাটিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজেই এখন চোখ তার। এজন্য ক্রিকেট বোর্ড খেলোয়াড়দের বিভিন্ন দলে ভাগ করে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি খেলানোর কথা চিন্তা করছে।

‘সেগুলো সফলভাবে করতে পারলে আমরা সব ফর্ম্যাটে প্রস্তুত থাকবো’, বলেন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ২৩ সেঞ্চুরির মালিক তামিম৷ ক্রিকেট নিয়ে মানুষের আগ্রহ বা খেলোয়াড় বাছাই নিয়ে সবার মন্তব্যকে কিভাবে দেখেন- এমন প্রশ্ন ছিল ২০৭টি ওয়ানডে খেলা ওপেনারের কাছে। তামিম বিষয়টিকে দেখেন স্বাভাবিকভাবেই।

তার মতে, সবকিছুতে মতামত দেয়াটা বাংলাদেশের মানুষের আবেগেরই অংশ। তবে তার আপত্তি খেলোয়াড়দের নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের বিভিন্ন ফ্যান পেইজগুলোতে কাদা ছোঁড়াছুড়ি নিয়ে।

তিনি বলেন, ‘আমার যেটা নিয়ে আপত্তি তা হলো গ্রুপ-ইজম। সোশ্যাল মিডিয়াগুলোতে তামিমিয়ান, সাকিবিয়ান, মাশরাফিয়ান, মুশফিকিয়ান, রিয়াদিয়ান- এই গ্রুপগুলো নিজেদের গ্রুপকে ভালো দেখানোর জন্য আরেকজনকে আক্রমণ করে, যেটা ভালো না।’

তামিম বলেন, ‘গ্রুপ থাকা ভালো কথা। আপনারা ইনডিভিজুয়েলের ফ্যান। একটা জিনিস ভুলে যাবেন না, সবাই একটা দলের জন্য খেলে। আমার গ্রুপের মানুষজন যদি আমার কলিগকে ছোট করে তাহলে সেটা ফেয়ার হলো না।

গ্রুপইজম নিয়ে আমার সমস্যা আছে। মানুষের মতামত নিয়ে কোনো সমস্যা নেই।’

ভবিষ্যতে রাজনীতি নিয়ে তার ভাবনা নিয়ে তামিম কথা বলতে গিয়ে মাশরাফির মতো রাজনীতিবিদ হওয়ার সম্ভাবনা একেবারেই উড়িয়ে দিয়েছেন। তিনি বলেন, রাজনীতির মধ্যে তিনি কোনোভাবেই থাকতে চান না।

তামিমের ভাষ্য, ‘রাজনীতি নিয়ে আমার কোনো এক ফোঁটা ইচ্ছাও নেই। আমি মনে করি দ্যাট ইজ নট মাই কাপ অফ টি।’

সোনালীনিউজ

x