দাম্পত্য জীবনের ১৯ বছরে এসে আফ্রিদির যে ‘ভুল’ ক্ষমা করে দিলেন স্ত্রী

দাম্পত্য জীবনের ১৯টি বছর পার করলেন পাকিস্তান দলের সাবেক অধিনায়ক অলরাউন্ডার শহীদ আফ্রিদি।

আফ্রিদি-নাদিয়া যুগল এখন ৫ কন্যা সন্তানের জননী। আজ বুধবার ছিল এ জুটির বিবাহবার্ষিকী। আর এই বিশেষ দিনের কথা বেমালুম ভুলে গিয়েছিলেন আফ্রিদি।

সে কথা টুইটারে নিজেই জানালেন আফ্রিদি। আর সামাজিক কর্ম নিয়ে ব্যস্ত থাকা স্বামীর সেই ভুলে যাওয়ার বিষয়টি স্বাভাবিকভাবেই মেনে নিয়েছেন তার স্ত্রী নাদিয়া আফ্রিদি।এ নিয়ে আফ্রিদির প্রতি কোনো অভিমানও নেই নাদিয়ার।

৪০ বছর বয়সী আফ্রিদি ১৯৯৮ সাল থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত ২০ বছরের ক্রিকেট ক্যারিয়ারে পাকিস্তানের হয়ে ২৭টি টেস্ট, ৩৯৮ ওয়ানডে আর ৯৯টি টি-টোয়েন্টি খেলেছেন।

বলতে গেলে স্বামীর এই ভুলকে ক্ষমা করে দিয়েছেন পাঁচ মেয়ের জননী নাদিয়া।

আর স্ত্রীর এই ক্ষমাপ্রবণ হৃদয়ের গুণটির প্রশংসা করে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট না করে পারলেন না আফ্রিদি।

আজ এই বিবাহবার্ষিকীতে স্ত্রীর সঙ্গে তোলা কয়েকটি ছবি টুইটারে আপলোড করেছেন আফ্রিদি। এছাড়া স্ত্রী নাদিয়াকে নিয়ে আবেগঘন এক টুইট করেছেন এই পাক অলরাউন্ডার।

টুইটে আফ্রিদি লিখেছেন, ‘আজ সুখী দাম্পত্য জীবনের ২০ বছরে পা রাখলাম। এমন একজন যত্মশীল, বুঝদার এবং আমাদের সন্তানদের জন্য অপূর্ব একজন মা পেয়েছি, আলহামদুলিল্লাহ।’

টুইটের পরে অংশে আফ্রিদি লিখেছেন, ‘আজ আমি বিবাহবার্ষিকীর কথা ভুলে গিয়েছিলাম। কিন্তু সে আমাকে ক্ষমা করে দিয়েছে। তার সুন্দর গুণগুলোর মধ্যে এটিও একটা।’